মুসলিম বিশ্বআরও »
বিভিন্ন পেশার দক্ষ বিদেশি নাগরিকদের সউদী আরবে নাগরিকত্ব দেওয়ার এক রাজকীয় ঘোষণার পর প্রথম দিনেই নাগরিকত্ব লাভ করেছেন বাংলাদেশের মুখতার আলম শিকদার। তিনি প্রধান ক্যালিগ্রাফার হিসেবে মক্কার পবিত্র কাবা ঘরের গিলাফ (কিসওয়াহ) প্রস্তুতকারক প্রতিষ্ঠানে দীর্ঘ ২০ বছর কাজ করছেন। সউদী গেজেট সূত্রে এ খবর জানা যায়। গত বৃহস্পতিবার (১১ নভেম্বর) সউদী বাদশার এক রাজকীয় নির্দেশনায় বিভিন্ন পেশার বিশিষ্ট ব্যক্তিদেরকে নাগরিকত্ব দেওয়া কথা জানানো হয়। এদের মধ্যে ধর্মীয় ব্যক্তিত্ব, ইতিহাসবিদ, সাংস্কৃতিক ব্যক্তিত্ব ও চিকিৎসক, বিনিয়োগকারক, প্রযুক্তিবিদ, ক্রীড়াবিদসহ পাঁচ বিদেশি নাগরিক আছেন। সউদী যুবরাজ মোহাম্মদ বিন সালমান ঘোষিত ‘ভিশন-২০৩০’ -এর অংশ হিসেবে বিভিন্ন পেশার দক্ষ বিদেশিদের নাগরিকত্ব দেওয়ার এ রাজকীয় নির্দেশনা দেওয়া হয়। সউদী সংবাদ মাধ্যম আশ শারাক আল আওসাতের বরাত দিয়ে সউদী গেজেট জানায়, নাগরিকত্ব পাওয়া বিশিষ্ট ব্যক্তিদের মধ্যে আছেন, পবিত্র কাবার গিলাফের (কিসওয়া) প্রধান ক্যালিগ্রাফার মুখতার আলম, ইতিহাসবিদ ড. আমিন সিদো, ড. আবদুল করিম আল সামমাক, প্রখ্যাত গবেষক ড. মুহাম্মদ আল বাকাই ও প্রখ্যাত নাট্য শিল্পী সামান আল আনি। সউদী গেজেটের প্রতিবেদনে মুখতার আলমের পরিচয়ে বলা হয়, মুখতার আলীম বর্তমানে মক্কার কিসওয়া কারখানায় পবিত্র কাবার কিসওয়ার প্রধান ক্যালিগ্রাফার হিসেবে কাজ করছেন। সউদী আরব ও আন্তর্জাতিক বিভিন্ন প্রদর্শনীতে তাঁর প্রধান ক্যালিগ্রাফিগুলো প্রদর্শিত হয়েছে। ক্যালিগ্রাফি দক্ষতা বিষয়ক প্রশিক্ষণে তিনি গুরুত্বপূর্ণ পাঠদান করেন। মক্কার দ্য ইনস্টিটিউট অব হলি মসকো তথা পবিত্র মসজিদুল হারাম …


ধর্ম-দর্শনআরও »
সৌদি আরবসহ মধ্যপ্রাচ্যের দেশগুলোতে উদযাপিত হচ্ছে পবিত্র ঈদুল আজহা। মঙ্গলবার করোনাভাইরাস সংক্রমণ প্রতিরোধী সতর্কতামূলক ব্যবস্থা মেনেই দেশগুলোতে পবিত্র ঈদ উৎসব পালন করা হচ্ছে। এছাড়া সংযুক্ত আরব আমিরাত, কুয়েত, ওমান, মিসর, মালয়েশিয়া, ইন্দোনেশিয়াসহ মধ্যপ্রাচ্যের প্রায় সব দেশেও আজ ঈদুল আজহা উদযাপিত হচ্ছে। সৌদি আরবসহ মধ্যপ্রাচ্যের অন্যান্য দেশের সাথে মিল রেখে যুক্তরাজ্য, যুক্তরাষ্ট্র, এবং ইউরোপে আজ মঙ্গলবার মুসলমানদের সর্ববৃহৎ ধর্মীয় উৎসব পবিত্র ঈদুল আজহা পালিত হচ্ছে। এবারে ব্রিটেনের প্রায় সকল মসজিদে অনুষ্ঠিত হচ্ছে ঈদ জামাত। এদিকে হজের তৃতীয় দিনে মঙ্গলবার সকাল থেকে মক্কা থেকে পূর্বে মিনায় জমায়েত হওয়া শুরু করেছেন হাজীরা। মিনায় তিন জামরাতে হাজীরা শয়তানকে প্রতীকি পাথর নিক্ষেপ করবেন। পরে কোরবানী ‍ও চুল কাটার মধ্য দিয়ে ইহরাম থেকে মুক্ত হবেন হাজীরা। এর আগে রোববার থেকে মিনায় হাজীদের অবস্থানের মাধ্যমে হজের মূল আনুষ্ঠানিকতা শুরু হয়। সোমবার মিনা থেকে দক্ষিণ-পূর্বে আরাফাতের ময়দানে হাজির হন তারা। সেখানে হজের খুতবার সাথে যোহর ও আসরের নামাজ একত্রে জামায়াতে আদায় করেন তারা। সারাদিন আরাফাতে ইবাদতে কাটানোর পর সন্ধ্যায় তারা আরাফাত ও মিনার মাঝামাঝি মুজদালিফায় গিয়ে রাত্রিযাপন করেন। সেখানে তারা একত্রে মাগরিব ও এশার নামাজ আদায় করেন। করোনাভাইরাস সংক্রমণের কারণে এই বছর শয়তানকে নিক্ষেপের জন্য হাজীদের আগেই জীবানুমুক্ত করা নুড়িপাথর সরবরাহ করা হয়েছে। এই বছর মক্কার মসজিদুল হারাম ও মদীনার মসজিদে নববীতে ঈদের নামাজের ইমামতিতে ছিলেন যথাক্রমে শেখ …

স্বাস্থ্যআরও »
ওষুধের জেনেরিক নাম ‘মলনুপিরাভিয়ার’। এটি একেবারেই কোভিডের চিকিৎসার জন্য তৈরি প্রথম ট্যাবলেট বলে বিজ্ঞানীদের দাবি। আর বিশ্বের প্রথম দেশ হিসেবে লক্ষণযুক্ত নভেল করোনাভাইরাসের চিকিৎসার জন্য অ্যান্টিভাইরাল পিলকে অনুমোদন দিয়েছে যুক্তরাজ্যের ওষুধ নিয়ন্ত্রকরা। এর মধ্য দিয়ে মুখে খাওয়ার ওষুধে করোনার চিকিৎসা শুরু হলো। করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে যাদের শারিরীক অবস্থা ঝুঁকিপূর্ণ অবস্থায় রয়েছে তাদের দিনে দুই ডোজ করে মলনুপিরাভির নামের এই ট্যাবলেটটি প্রদান করা হবে বিবিসির এক প্রতিবেদনে জানানো হয়েছে। ক্লিনিকাল ট্রায়ালে দেখা গেছে, ফ্লুয়ের চিকিৎসার জন্য তৈরি করা এই ওষুধটি করোনার কারণে হাসপাতালে ভর্তি এবং মৃত্যুর হার কমিয়ে দেয় অর্ধেক। যুক্তরাজ্যের হেলথ সেক্রেটারি সাজিদ জাভিদ বলেন, এই চিকিৎসা ঝুঁকিপূর্ণ অবস্থায় থাকা রোগীদের জন্য ‘গেমচেঞ্জার’। এক বিবৃতিতে তিনি বলেন, আজকের দিনটি আমাদের দেশের জন্য ঐতিহাসিক। কারণ যুক্তরাজ্য এখন বিশ্বের প্রথম দেশ যারা সেই অ্যান্টিভাইরালটিকে অনুমোদন দিলো যেটা করোনা হলে বাসায় নিয়ে যাওয়া যাবে। যুক্তরাষ্ট্রের ওষুধ কোম্পানী মার্ক, শার্প অ্যান্ড ডোহমি(এমএসডি) এবং রিজব্যাক বায়োথেরাপিউটিকস যৌথভাবে মলনুপিরাভির নামের এই ওষুধটি তৈরি করে। এটিই করোনা রোগীদের জন্য প্রথম ওষুধ যেটা ইনজেকশনের মাধ্যমে বা শিরায় দেওয়ার মাধ্যমে গ্রহণের বদলে মুখে খেতে হবে। ব্রিটেনের ওষুধ নিয়ন্ত্রকরা বলেছেন, তারা বিশ্বের প্রথম মুখে খাওয়ার ওষুধ মুলনুপিরাভিরকে অনুমোদন দিয়েছে কারণ এটি হালকা থেকে মাঝারি ধরনের করোনাভাইরাসের সংক্রমণে যাদের পরিস্থিতি খারাপ হওয়ার ঝুঁকি আছে তাদের হাসপাতালে ভর্তি এবং মৃত্যুর ঝুঁকি কমিয়েছে।
গ্যালারীআরও »
ভিডিওআরও »
Let’s talk to make a change
Let’s talk to make a change
Let’s talk to make a change
Back to top button