মন্দার আশংকায় যুক্তরাজ্যের ব্যাংকসমূহ’র ৮ বিলিয়ন পাউন্ড লভ্যাংশ বাতিল

ব্রিটেনের বৃহত্তম ব্যাংকগুলো করোনা ভাইরাসের আলোকে প্রায় ৮ বিলিয়ন পাউন্ড লভ্যাংশ কর্তনে অর্থাৎ বাতিলে সম্মত হয়েছে যাতে একটি আর্থিক পতনকালে ব্যাংকসমূহকে বাড়তি স্বস্তি দেয়া যায়। ব্যাংক অব ইংল্যান্ডও ঝণদাতাদের প্রতি নির্বাহীদের জন্য ক্যাশ বোনাসের পরিকল্পনা বাতিলের নির্দেশ প্রদান করেছে। একই ভাবে আর্থিক প্রতিষ্ঠানগুলোকে একটি সম্ভাব্য আসন্ন মন্দার মুখে তাদের শক্তি বৃদ্ধির জন্য বলেছে।

ধারাবাহিক সমন্বিত বিবৃতিতে বার্কলেজ, এইএসবিএস, লয়েডস, রয়াল ব্যাংক অব স্কটল্যান্ড এবং স্ট্যান্ডার্ড চার্টার্ডসহ যুক্তরাজ্যের বৃহত্তম ঝণদাতা প্রতিষ্ঠানগুলো সম্প্রতি এই মর্মে নিশ্চিত করেছে যে, তারা ২০১৯ সালের ও ২০২০ সাল ব্যাপী শেয়ার হোল্ডার পে আউট ও শেয়ার বাইব্যাক সাময়িকভাবে বন্ধ রাখবে। ব্যাংকের সাথে আলোচনার পর এ সিদ্ধান্ত গ্রহণ করা হয়।
২০১৯ সালের ডিভিডেন্ড অর্থ্যাৎ লভ্যাংশ বাতিলকরণ ব্যাংকগুলোকে মোট প্রায় ৮ বিলিয়ন পাউন্ডের একটি অতিরিক্ত আর্থিক সুবিধা প্রদান করবে, যাতে কোভিড-১৯ লকডাউন কালে ব্যবসা প্রতিষ্ঠান ও বাড়িঘরের জন্য তাদেরকে ঝণ বৃদ্ধির দিকে ঠেলে দেয়া হয়েছে।
নির্বাহীদের কাছে প্রেরিত একটি পত্রে ব্যাংক গুলোর প্রুডেনশিয়াল অথোরিটির প্রধান, যা আর্থিক স্হিতিশীলতার দায়িত্বে নিয়োজিত জানান যে, যে সব বোনাস এখনো পরিশোধিত হয়নি, তা-ও বাতিল হওয়া উচিত। পিআরএ-এর বস স্যাম উডস্ নির্বাহীদের বলেন, পিআরএ চায় ব্যাংকগুলো যেনো সকল বাস্তব ঝুঁকি বহনকারী সহ সিনিয়র স্টাফদের কোন ক্যাশ বোনাস প্রদান না করে এবং তারা এই মর্মে আত্মবিশ্বাসী যে, ব্যাংক বোর্ডগুলো ইতোমধ্যে বিষয়টি বিবেচনা করছে এবং আগামী মাসগুলোতে ইনক্রিমেন্ট অর্থ পরিশোধ ও বিভিন্ন সম্মানী সংক্রান্ত বিষয়ে পরবর্তী পদক্ষেপ গ্রহণ করবে। যখন যুক্তরাজ্যের অধিকাংশ ব্যাংক প্রধানেরা ইতোমধ্যে ২০১৯ সালের জন্য তাদের নগদ বোনাস গ্রহণ করেছেন, তখন ২০২০ সালের জন্য প্রধান নির্বাহীদের বেতন কর্তনের সিদ্ধান্ত প্রত্যাশিত। ‘থ্রেডনিডল স্ট্রিট’— এর সর্বশেষ স্ট্রেস টেস্টসমূহ প্রকাশের কয়েক মাস পর সিদ্ধান্তটি নেয়া হয়, যাতে এই মর্মে সতর্ক করে দেয়া হয় যে দেশটির বৃহত্তম ঝণদাতারা স্টাফদের বোনাস ও শেয়ারধারীদের একটি তাৎপর্যপূর্ণ আর্থিক নিম্নমুখী অবস্হায় টিকে থাকার জন্য সংগ্রাম করবে। এছাড়া ব্যাংক অব ইংল্যান্ড বীমাকারীদের প্রতি এই মর্মে একটি সতর্ক বাণী প্রচার করেছে যে, সিনিয়র স্টাফদের লভ্যাংশ কিংবা বোনাস প্রদানের আগে এ নিয়ে সতর্কতার সাথে চিন্তাভাবনা করা উচিত।
এতে বলা হয়েছে: আমরা চাই তারা পলিসিহোল্ডার গণের সুরক্ষা প্রদান, নিরাপত্তা ও স্বস্তি বজায় রাখার প্রতি নিবিড় মনোযোগ প্রদান করবেন এবং এর উদ্দেশ্য হচ্ছে, তাদের প্রতিষ্ঠান যেনো কোভিড-১৯ থেকে উদ্ভুত আর্থিক প্রতিবন্ধকতার সময় ব্যাপী প্রকৃত অর্থনীতিকে সহায়তা প্রদানে পূর্ণ ভূমিকা পালন করতে পারে। সিদ্ধান্ত সমূহ অবিলম্বে অনুভূত হবে বার্কলেজ শেয়ার হোল্ডারদের ক্ষেত্রে শুক্রবারে যাদের ১ বিলিয়ন পাউন্ডেরও বেশী অর্থ গ্রহন করার কথা।
বার্কলেজ বলেছে, ইউকে প্রুডেনশিয়েল রেগুলেশন অথোরিটির নিকট থেকে একটি অনুরোধে সাড়া দিয়ে ২০১৯ সালের অর্থ পরিশোধ বাতিল এবং বার্কলেজ -এর গ্রাহক ও মক্কেলদের সেবার অতিরিক্ত মূলধন সংরক্ষিত রাখার জন্য সিদ্ধান্তটি নেয়া হয়েছে।
আগামী ৪ মে পরিশোধযোগ্য রয়াল ব্যাংক অব স্কটল্যান্ড কর্তৃক ৯৬৮ মিলিয়ন পাউন্ডের অর্থ পরিশোধ বাতিল সরকারী কোষাগারেও প্রতিক্রিয়া সৃষ্টি করবে।
ঝণদাতা, যে করপরিশোধকারীদের দ্বারা শতকরা ৬২ ভাগ ঝণী, তাকে কোষাগারে প্রায় ৬০০ মিলিয়ন পাউন্ড প্রদান করতে হবে।
থ্রেডনিডল স্ট্রিট -এর ঘোষণাটি এসেছে এমন এক সময় যখন ব্যাংকটিকে ইউরোপীয় কেন্দ্রীয় ব্যাংকের পদাংক অনুসরণের জন্য তার উপর চাপ বৃদ্ধি পাচ্ছিলো, যে গত সপ্তাহে অন্তত: ১ অক্টোবর পর্যন্ত লভ্যাংশ পরিশোধ ও শেয়ার পুনক্রয় বন্ধ রাখতে ঝনদাতাদের প্রতি আহবান জানায়।

আরও পড়ুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আরও দেখুন...

Close
Back to top button
Close