মুসলিম কাউন্সিল অব ব্রিটেনের প্রথম নারী মহাসচিব জারা মোহাম্মদ

ব্রিটেনের মুসলিম কাউন্সিল এই প্রথমবারের মতো একজন নারীকে মহাসচিব নির্বাচিত করেছে। এটা মুসলিম কমিউনিটির জন্য একটি স্মরনীয় মুহূর্ত। গ্লাসগোর ট্রেনিং কনসালট্যান্ট এটাকে একটি সম্মান ও আশীর্বাদ বলে উল্লেখ করেছে। মুসলিম কাউন্সিল অব ব্রিটেন (এমসিবি) এর গত রোববার অনুষ্ঠিত একটি ভার্চুয়াল সাধারন সভায় জারা মোহাম্মদকে মহাসচিব নির্বাচিত করা হয়। তিনি ১০৭ ভোটের মধ্যে পান ৬০ টি। তার প্রতিদ্বন্দ্বী ছিলেন ইমাম ও শিক্ষক আজমল মাসরুর।

এক বিবৃতিতে জারা মোহাম্মদ বলেন, আমার লক্ষ্য হচ্ছে প্রতিষ্ঠানকে একটি প্রকৃত ব্যতিক্রমধর্মী, বৈচিত্র্যপূর্ণ ও প্রতিনিধিত্বশীল হিসেবে গড়ে তোলা অব্যাহত রাখা, যে প্রতিষ্ঠান ব্রিটিশ মুসলমানদের সাধারণ কল্যাণের জন্য পরিচালিত হবে। প্রথম নারী সেক্রেটাারি জেনারেল হওয়া আমার জন্য একটি সম্মান এবং আমি আশা করি এটা নেতৃত্বের ভূমিকা পালনে অধিক সংখ্যক নারী ও তরুণ লোকজনকে এগিয়ে আসতে অনুপ্রাণিত করবে। কারণ তারা এই সংগঠন ও আমাদের সমাজের ভবিষ্যত। লন্ডনের মেয়র সাদিক খান তার নির্বাচনকে একটি দারুণ খবর বলে উল্লেখ করেন।
জারা আরো বলেন, যুক্তরাজ্যের মুসলিম জনগোষ্ঠীর আমব্রেলা বা ছত্রছায়া হিসেবে পরিচিত প্রতিষ্ঠানটির নেত্রী নির্বাচিত হওয়াটা আমার জন্য সম্মান ও আশীর্বাদস্বরূপ। ইতিহাস সৃষ্টি একটি দারুণ বিষয়। তবে এই দায়িত্বে একজন তরুণ নারী, তা অত্যন্ত আলোড়ন সৃষ্টিকারী ঘটনা। আমি আশা করি, এটা অন্যান্যদের অনুপ্রাণিত করবে।
তিনি আরো বলেন, মুসলমানরা যুক্তরাজ্যে সবচেয়ে জরুরী যে পরিস্থিতির সম্মুখীন, তা হচ্ছে কভিড-১৯ মহামারি। মুসলিম সমাজের তরুণ লোকজন ও নারীদের একই সাথে বৈচিত্রপূর্ণ নৃতাত্ত্বিক জনগোষ্ঠী এবং মুসলিম কমিউনিটি ছাড়িয়ে আন্তঃধর্ম অংশীদারিত্ব, সিভিল সোসাইটির সংগঠণসমূহ ও মিত্রদের জড়িতকরণ অব্যাহত রাখা আসলেই আমার পক্ষে কঠিন কাজ।
জেনারেশন এম: ইয়াং মুসলিমস চ্যাঞ্জিং দ্য ওয়ার্ল্ড-এর লেখক বলেন, জারা মোহাম্মদের নির্বাচন মুসলিম কমিউনিটির জন্য, একই সাথে সামগ্রিকভাবে যুক্তরাজ্যের জন্য একটি আনন্দের মুহূর্ত। সমাজ ও কমিউনিটির চ্যালেঞ্জপূর্ণ সময়ে নেতৃত্বের পদে তরুণ, উজ্জ্বল, শক্তিমতী ও দূরদর্শী নারীদের দেখতে পাওয়া একটি গুরুত্বপূর্ণ মুহূর্ত। তার নির্বাচন যুক্তরাজ্যব্যাপী আওয়াজের গুরুত্বই প্রদর্শন করছে এবং কমিউনিটির বৈচিত্র্যপূর্ণ ভৌগলিক বিস্তারের প্রতিফলনও ঘটিয়েছে। যেহেতু ব্রিটেনের সামাজিক, রাজনৈতিক, সাংস্কৃতিক ও অর্থনৈতিক ক্ষেত্রে পরিবর্তন ঘটছে, এক্ষেত্রে জারা মোহাম্মদের কন্ঠ জাতীয় পর্যায়ে গুরুত্বপূর্ণ হবে।
তিনি আরো বলেন, আমি আশা করি, তার নেতৃত্ব নিরব, সমর্পিত, মুসলিম নারীদের চিরাচরিত আচরণ দূর করবে এবং মুসলিম কমিউনিটিগুলোর সাথে একটি নতুন যুগে উদ্ভাসিত হবে।
জারা মোহাম্মদ হারুন খানের উত্তরসূরী হয়েছেন, যিনি গত চার বছর সংগঠনের মহাসচিব ছিলেন। হারুণ খান বলেন, আমি জারা মোহাম্মদের সাফল্য কামনা করি। তিনি যেনো দেশব্যাপী আমাদের কমিউনিটির কল্যাণে এই সংগঠনকে মহত্তর উচ্চতায় নেতৃত্বদান অব্যাহত রাখেন।

আরও পড়ুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আরও দেখুন...

Close
Back to top button
Close