ঋষি সুনাকের সতর্কবাণী:

চুক্তিহীন ব্রেক্সিট সংকটপূর্ণ শীতকাল বয়ে আনবে

ব্রিটিশ চ্যান্সেলর ঋষি সুনাক এই মর্মে সতর্কবাণী উচ্চারণ করেছেন যে, চুক্তি ছাড়া ব্রেক্সিটের অর্থ হচ্ছে যুক্তরাজ্যের জন্য কভিডের কারনে একটি কষ্টদায়ক শীতকাল আসন্ন। কেমিক্যালস, মানুফ্যাকচারিং এবং কার শিল্প ইতোমধ্যে কভিড সংকটে বিধ্বস্ত হয়ে গেছে, যার জন্য করদাতাদের নিকট থেকে তাৎপর্যপূর্ন সহায়তা আবশ্যক।

তা সত্বেও তিনি জোর দিয়ে বলেন যে, ইইউ এর সাথে চুক্তি হোক বা না হোক ব্রিটেনের উন্নতি অব্যাহত থাকবে। তিনি গত মঙ্গলবার পূর্ণ মন্ত্রী সভায় প্রধানমন্ত্রীর উচ্চারিত বক্তব্যের প্রতিধ্বনি করে এ কথাগুলো বলেন। প্রধানমন্ত্রী মন্ত্রীদের উদ্দেশে বলেন, ব্রাসেলেসের সাথে একটি ব্রেক্সিট উত্তর বানিজ্য চুক্তি ব্যর্থ হলেও যুক্তরাজ্যের জন্য ভয়ের কিছু নেই।
যদি আলোচনা ব্যর্থ হয়, তবে যুক্তরাজ্যে অবাধে ওষুধ ও পন্য সরবরাহে সহায়তার জন্য ব্যাপক ভাবে ফেরি সক্ষমতা ক্রয়ে মন্ত্রীবর্গের ইইউ এর ওপর চাপ সৃষ্টির পর প্রধানমন্ত্রী এ কথাগুলো বলেন।
জার্মান চ্যান্সেলর অ্যাঞ্জেলা মার্কেল সম্প্রতি অন্যান্য ইইউ নেতাদের সতর্ক করে বলেছেন যে, তাদেরকে ব্রিটেনের সাথে বানিজ্য আলোচনায় অধিকতর বাস্তববাদী হতে হবে।
তিনি আরো বলেন, আইরিশ প্রেক্ষাপটে একটি চুক্তি বিশেষভাবে জরুরী। তিনি রাজধানীগুলোকে তাদের অবস্থান আরো নমনীয় করার আহ্বান জানান। যুক্তরাজ্যের আলোচকদের শংকা, প্রধানমন্ত্রীর চুক্তির জন্য শেষ সময়সীমা লক্ষ্যচ্যুত হতে পারে, কারন মাইকেল বার্নিয়ার ইইউ দেশগুলোর ওপর নিয়ন্ত্রন হারিয়েছেন।
ব্রিটিশ সূত্রসমূহ বলেছে, ফরাসী জনগন দেশসমূহকে, বিশেষভাবে তাদের মাতৃভূমিকে আরো বাস্তবধর্মী অবস্থান গ্রহনে রাজী করাতে অক্ষম। মিঃ বার্নিয়ার বলেন, আগামী দিন ও সপ্তাহ গুলোতে আলোচনা অব্যাহত থাকবে ১০ নং এর দ্রুত অগ্রগতির দাবিকে উপেক্ষা করেই।
অ্যাঞ্জেলা মার্কেল আরো বলেন, ব্রিটেনের সাথে আলোচনার ক্ষেত্রে ইইউ নেতৃবৃন্দের আরো বাস্তাববাদী হওয়া আবশ্যক।
আয়ারল্যান্ডের পররাষ্ট্রমন্ত্রী সাইমন কোভনি বলেন, এই আলোচনায় অনেক দিন পার হয়েছে। এ সপ্তাহে আমি কোন উল্লেখযোগ্য অগ্রগতি দেখতে পাচ্ছি না। কিন্তু এর জবাবে যুক্তরাজ্য সরকারের সূত্রগুলো বলেছে, ইইউ পুরোনো প্লেবুক ব্যবহার করছে, যাতে তারা ভেবেছেন, ঘড়ির কাঁটার নিম্নগামিতা যুক্তরাজ্যের বিরুদ্ধে চলে যাবে। তারা মনে করেছেন যে, প্রক্রিয়া যতো দীর্ঘায়িত হবে, যুক্তরাজ্য সমঝোতায় আসতে ততোই ইচ্ছুক হবে। সময় এখন বিশেষভাবে সংক্ষিপ্ত। আমরা চাই, ইইউ জরুরী পদক্ষেপ নিক এবং কিছু সৃজনশীলতা প্রদর্শন করুক।

আরও পড়ুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আরও দেখুন...

Close
Back to top button
Close