জরিমানার বিধান থাকবে

সেপ্টেম্বর থেকে কোভিড পরবর্তী স্কুল চালু হচ্ছে ব্রিটেনে

করোনামহামারিতে দীর্ঘদিন বন্ধ থাকা ব্রিটেনের স্কুলগুলোতে আগামী সেপ্টেম্বর মাস থেকে ছাত্র-ছাত্রীদের ফেরাতে সুরক্ষা পরিকল্পনা প্রকাশ করেছে সরকার। প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসন বলেছেন, অভিভাবকরা যাতে সন্তানদের স্কুলে পাঠাতে গড়িমসি না করেন সেজন্যে জরিমানার বিধান থাকবে।
তবে কোভিডে কিভাবে শারীরিক দূরত্ব বজায় রেখে পাঠদান হবে এ নিয়ে অভিভাবকদের শঙ্কা এখনো কাটেনি। কিন্তু বরিস চাচ্ছেন সেপ্টেম্বর থেকেই স্কুল বাধ্যতামূলক করতে। সরকারের পক্ষ থেকে কোনো ক্লাসের কমপক্ষে ২ জন ছাত্র-ছাত্রীর দেহে করোনার উপসর্গ দেখা দিলেই ওই ক্লাসের সবাইকে অথবা প্রয়োজনে পুরো স্কুলকে ১৪ দিনের জন্য বন্ধ রাখার নির্দেশনা দেয়া হয়েছে।
ডিপার্টমেন্ট ফর এডুকেশন নতুন এই সুরক্ষা পরিকল্পনা জারি করেছে। তাতে বলা হয়েছে কিভাবে শিশুদের স্কুলে ফিরিয়ে আনতে হবে, কিভাবে শিশুদের পুরো সময়ে স্কুলে রাখা যাবে, তার পরিকল্পনা করা হয়েছে। যদি কোন শিশুর দেহে এরকম উপসর্গ দেখা দেয়, স্কুল অভিভাবকদের টেস্টিং কিট দিবে। যার প্রাদুর্ভাব রয়েছে তাদের জন্য মোবাইল টেস্টিং ইউনিট প্রেরণ করা হবে।
সামাজিক দূরত্বের ক্ষেত্রে এডুকেশন সেক্রেটারী গ্যাভিন উইলিয়ামসন বলেছেন, এটি এক মিটারও নয়, আবার দুই মিটারও নয়। স্কুল চালু করার নতুন নিয়মগুলোর মধ্যে রয়েছে, শিশুদের গ্রুপ আকারে রাখা, প্রাইমারি স্কুলে শিশুদের ক্লাসে এবং সেকেন্ডারী স্কুলে গ্রুপ আকারে শিক্ষাদান, স্কুলে এক গ্রুপের সাথে অন্য গ্রুপের যোগাযোগ এড়ানো, পৃথকভাবে ক্লাস শুরু, শেষ করা, মধ্যাহৃভোজ এবং বিরতি সময় পৃথক, উপস্থিতির জন্য প্রয়োজনে জরিমানা বাধ্যতামূলক, স্কুলের জন্য টেস্ট এন্ড ট্রাক, নিয়মিত হাত পরিস্কার, যাদের লক্ষণ দেখা দিবে তাদেরকে স্কুল থেকে দূরে রাখা। তবে স্কুলে ছাত্র – ছাত্রী কিংবা স্টাফদের জন্য মাস্ক বাধ্যতামূলক নয় ।

আরও পড়ুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আরও দেখুন...

Close
Back to top button
Close