কোভিড-১৯ এর বিস্তার অপরাধীদের জন্য সুযোগ সৃষ্টি করেছে

ব্রিটেনে করোনাভাইরাস সংকটে সাইবার অপরাধীরা সক্রিয়

অপরাধীরা স্বাস্হ্য কর্মকর্তার পরিচয় দিয়ে ব্যক্তিগত তথ্য হাতিয়ে নিচ্ছে

ব্রিটেনের ন্যাশনাল ক্রাইম এজেন্সী (এনসিএ) অর্থ্যাৎ জাতীয় অপরাধ সংস্হা এই মর্মে জনগণকে সতর্ক করে বলেছে যে, সংঘবদ্ধ অপরাধীরা করোনাভাইরাস মহামারীকে প্রতারণার ক্ষেত্রে হাতিয়ার হিসেবে ব্যবহার করছে। সংস্হার মহাপরিচালক স্টিভ রডহাউস বলেন, আমরা স্বীকার করছি যে, কোভিড-১৯ এর বিস্তার অপরাধীদের জন্য সুযোগ সৃষ্টি করেছে এবং আমরা ইন্টেলিজেন্স এবং অপরাধ প্রবণতা পর্যবেক্ষণ করছি এটা নিশ্চিত করতে যাতে আমরা এবং সমগ্র আইন প্রয়োগকারী পদ্ধতি প্রয়োজন অনুযায়ী ব্যবস্হা নিতে পারে।

জাতীয় অপরাধ সংস্হা জানায়, এই সাইবার ক্রাইম তদন্তকারীরা জনগণের ব্যক্তিগত ও আর্থিক তথ্য চুরির লক্ষ্য করোনাভাইরাস ভিত্তিক বিদ্বেষমূলক অ্যাপস ও ওয়েবসাইট সমূহ একই সাথে ই-মেইল ফিশিং এ্যাটাকের বিষয়টি জানিয়েছে। একটি রিপোর্টে বলা হয়েছে, অপরাধীরা স্বাস্হ্য কর্মকর্তার পরিচয় দিয়ে ভিকটিমদের ব্যক্তিগত তথ্য প্রকাশ করার জন্য চাপ দিচ্ছে।
সংস্হাটি আরোও জানায়, যুক্তরাজ্য থেকে প্রেরিত সন্দেহকৃত জাল কোভিড-১৯ টেস্ট কিটের একটি চালান আটক করেছেন লস এন্জেলেসের ইউএস বর্ডার কর্মকর্তারা।
কর্মকর্তারা জানান, এমনকি সংঘবদ্ধ গ্রুপসমুহ এবং পাচারকারীরা অভিবাসীদের বলছে যে, ডিমান্ড বৃদ্ধির জন্য মহাদেশের মধ্যে যুক্তরাজ্য অধিক নিরাপদ।
মিস্টার রডহাউস আরো বলেন, গুরুতর ও সংঘবদ্ধ অপরাধের বিরুদ্ধে লড়াই পরিচালনায় আমাদের মিশন আগে কখনো এতো গুরুত্বপূর্ণ ছিলো না এবং আমরা কাজ করে যাচ্ছি।
জাতীয় অপরাধ সংস্হার ন্যাশনাল সাইবার ক্রাইম ইউনিট জনগণকে অনলাইনে মহামারী সংক্রান্ত তথ্য অনুসন্ধানের ক্ষেত্রে অতিরিক্ত সতর্কতা অবলম্বন এবং এই মর্মে নিশ্চিত হওয়ার জন্য পরামর্শ দিয়েছেন যে, তারা যে অনলাইন সেইফটি উপদেশ অনুসরণ করছেন তা ন্যাশনাল সাইবার সিকিউরিটি সেন্টারের ওয়েবসাইটে আছে কি-না।
লন্ডন সিটি পুলিশ মহামারীকে ব্যবহার করে প্রতারকগণ কর্তৃক সাইবার অপরাধ সংঘঠনের ব্যাপারে সতর্কতা জারি করেছে। করোনাভাইরাস সংশ্লিষ্ট পণ্য সামগ্রীর চাহিদা ব্যবহার করে অপরাধ নেটওয়ার্কের তৎপরতা লক্ষ্য করা যাচ্ছে। যেহেতু স্কুল বন্ধ রয়েছে তাই সংস্হাটি শিশুদের নিরাপত্তা ও অনলাইনে নিরাপদ শিক্ষার বিষয়ে তৎপরতা বৃদ্ধি করছে।
যেহেতু লোকজন এখন অধিক হারে অনলাইন ও ইনডোর ব্যবহার করছে, তাই অপরাধ বৃদ্ধির ঝুঁকি রয়েছে এবং জাতীয় অপরাধ সংস্হা পিতা-মাতা ও যত্নকারীদের শিশু ও তরুণদের নিরাপদ রাখার ব্যপারে পরামর্শের জন্য থিংকইউনো এডুকেশনাল ওয়েবসাইট ভিজিট করার জন্য অনুরোধ জানিয়েছে।
যানবাহন চলাচলের ওপর নিষেধাজ্ঞা থাকা অবস্হায় চলতি সপ্তাহে ডোভারের বর্ডার ফোর্স আধটন কোকেইন আটক করে। এছাড়া চ্যানেল পোর্টসে আগ্নেয়াস্ত্র ও গুলী উদ্ধার করেছে। দুটি ঘটনায় সংস্হাটি দুই ব্যাক্তিকে আটক করেছে।
মিস্টার রডহাউস বলেন, জাতীয় অপরাধ সংস্হা সেবা প্রদান করছে যা সরাসরি জনগণকে নিরাপদ রাখছে এবং এজন্য আইন প্রয়োগকারীদের তা করার সুযোগ করে দিচ্ছে। এটা মহামারীর পুরো সময় ব্যাপী চলবে।
তিনি আরো বলেন, আমরা এই কঠিন সময়ে সতর্ক থাকার জন্য এবং সন্দেহজনক কিছু লক্ষ্য করলে এ ব্যাপারে জানানোর জন্য জনগণকে আহবান জানাচ্ছি।

আরও পড়ুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আরও দেখুন...

Close
Back to top button
Close