ব্রেক্সিট দিবসে চালু হবে নতুন কয়েন, থাকবে আলোক সজ্জা ও ‘রেডি টু ট্রেড’ প্রচারাভিযান

ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসন আগামী ৩১ জানুয়ারী ব্রিটেনের ব্রেক্সিট দিবস উদযাপনের লক্ষ্যে সরকারের পরিকল্পনার কথা গোষনা করেছেন, তিনি গত ২৬ জানুয়ারী এটা প্রকাশ করেন। ব্রিটেন যেদিন ইউরোপীয় ইউনিয়ন ত্যাগ করবে সেদিন ৫০ পেন্সের স্মারক ধাতব মুদ্রা বাজারে চালু হবে। জনগণ ৩১ জানুয়ারী থেকে এ ধরনের ৩০ লাখ কয়েন তাদের ব্যাংক, দোকান ও রেস্তোরাঁগুলোতে দেখতে পাবেন। এছাড়া আগামী বছর আরো ৭০ লাখ মুদ্রা বাজারে ছাড়া হবে। প্রধানমন্ত্রী হবেন নতুন ব্রেক্সিট কয়েনের প্রথম গ্রাহক, যাতে লেখা থাকবে ‘সকল দেশের সাথে শান্তি, সমৃদ্ধি ও বন্ধুত্ব’। ইতোমধ্যে ১৩ হাজার লোক রাজকীয় টাকশালে এই কয়েনের জন্য নাম নিবন্ধন করিয়েছে। ৩১ জানুয়ারী প্রধানমন্ত্রী ও তার সকল কেবিনেট নর্থ ইংল্যান্ডে একটি বিশেষ কেবিনেটের জন্য দিনটি শুরু করবেন। তারা প্রধানমন্ত্রীর গৃহীত এজেন্ডা নিয়ে এবং আগামী দশকককে সামনে রেখে কীভাবে যুক্তরাজ্যের সকল প্রান্তে সমৃদ্ধি ও সুযোগ সুবিধা বিস্তৃত করা যায়, সে সম্পর্কে আলোচনা করবেন ঐ বিশেষ কেবিনেটে। ঐদিন রাত ১০টায় প্রধানমন্ত্রী জাতির উদ্দেশে একটি বিশেষ ভাষণ দেবেন। এসময় ডাইনিং স্ট্রিটকে আলোকমালায় সজ্জিত করা হবে। এ ধরনের আলোকসজ্জা চলবে রাত ১১টা পর্যন্ত, যা যুক্তরাজ্যের ইউরোপীয় ইউনিয়ন থেকে আনুষ্ঠানিকভাবে বেরিয়ে যাওয়ার সময়। এর কালো ইটের ওপর স্থাপিত একটি কাউন্ট ডাউন ঘড়ি রাত ১০টা থেকে ক্ষনগণনা করবে এবং আলোক প্রদর্শনী দেশটির ৪টি জাতির শক্তিমত্তা ও ঐক্যের প্রতীক হিসেবে দৃশ্যমান হবে।

১লা ফেব্রুয়ারী ইউরোপীয় ইউনিয়নের বাইরের ১৩টি দেশের ১৭টি নগরীতে নতুন জিআরইএটি (গ্রেট) ‘রেডি টু ট্রেড’ ক্যাম্পেইন উদ্বোধন করা হবে, যুক্তরাজ্যের সাথে তার বৈশ্বিক সহযোগীদের সম্পর্ক গভীর করার লক্ষ্যে। এর আগে ব্রিটেনে ২৭ জানুয়ারী সোমবার ‘আগামী শুক্রবার যুক্তরাজ্যের ইইউ ত্যাগ’ বার্তা নিয়ে একটি সংক্ষিপ্ত অভিযান চালানো হবে ব্যবসা প্রতিষ্ঠান ও জনগনের উদ্দেশ্যে। এতে ২০২১ সালের জানুয়ারীকে সামনে রেখে কোন পরিবর্তন প্রয়োজন কি-না, তা পরীক্ষা করার আহŸান জানানো হবে। ৩১ জানুয়ারী পার্লামেন্ট স্কোয়ার ও মলে সারবিদ্ধভাবে উড়ানো হবে ইউনিয়ন জ্যাক অর্থাৎ ব্রিটিশ পতাকা। জনগণ হোয়াইটহলের সরকারী ভবনসমূহে সারা রাত লাল, সাদা ও নীল রংয়ের আলো জ্বলতে দেখবে।

প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসন বলেছেন, ‘আগামী শুক্রবার আমাদের যুক্তরাজ্যে একটি ঐতিহাসিক দিবস। ২০১৬ সালে আপনি যেভাবেই ভোট দিয়ে থাকেন না কেনো, এখন আত্মবিশ্বাস নিয়ে এগিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করতে হবে আগামী দশক ব্যাপী বৈশ্বিক আলোকোজ্জ্বল দেশ গড়তে এবং অতীতের বিভক্তি সারিয়ে তুলতে। আর এটাই আমি করতে যাচ্ছি আগামী ৩১ জানুয়ারী এবং যুক্তরাজ্যের সবাইকে তা করার জন্য আমি আহ্বান জানাচ্ছি।’ সপ্তাহব্যাপী প্রধানমন্ত্রী মন্ত্রীগণ যুক্তরাজ্যজুড়ে জনগণ ও ব্যবসা প্রতিষ্টানগুলোর সাথে সাক্ষাত করবেন গোটা দেশকে সামনে এগিয়ে যাওয়ার জন্য অনুপ্রাণিত করতে।

প্রধানমন্ত্রী ২৯ জানুয়ারী বুধবার একটি ‘পিপলস পিএমকিউজ’ অধিবেশন আহ্বান করবেন এবং বৃহস্পতিবার ডাউনিং স্ট্রিটে শিশুদের আমন্ত্রণ জানানো হবে। এসময় শিশুদেরকে পরবর্তী প্রজন্মের ভবিষ্যত গঠনে প্রধানমন্ত্রীর অভিপ্রায় সম্পর্কে প্রশ্ন করার সুযোগ দেয়া হবে। এভাবে ৩১ জানুয়ারী পর্যন্ত মন্ত্রীবর্গ সরকারের অভ্যন্তরীন অগ্রাধিকারের বিষয়সমূহের ওপর আলোকপাতকরণ অব্যাহত রাখবেন।

আরও পড়ুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আরও দেখুন...

Close
Back to top button
Close