২৫ মিটার দীর্ঘ নিজের বাগানে হেঁটে

৯৯ বছরের বৃদ্ধ এনএইচএস’র জন্য ১২ মিলিয়ন পাউন্ড সংগ্রহ করলেন

দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের বীর টম মুর ৩০ এপ্রিল তাঁর ১০০ তম জন্মদিন পলন করবেন

দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের এক যোদ্ধা ক্যাপ্টেন প্রবীণ ব্যক্তি যার বয়স ৯৯ বছর, তার ১০০ তম জন্মদিনের আগে ব্রিটেনের বেডফোর্ডশায়ারে নিজের বাড়ির পিছনের বাগানের ১০০ বার দৈর্ঘ্য হে‌টেঁ তিনি মাত্র এক সপ্তাহের মধ্যে এনএইচএসের (ব্রিটেনের জাতীয় স্বাস্থ্যসেবা) জন্য ১২ মিলিয়ন পাউন্ডের বেশি সংগ্রহ করেছেন। তহবিল সংগ্রহের জন্য তিনি নীরবে নিভৃতে কাজ করে গেছেন। তার টার্গেট বেডফোর্ডশায়ারে তার বাড়ি। সেখানে বাড়ির সামনে যে গার্ডেন বা বাগান, সেখানে একশত বার ঘুরে আসাই তার টার্গেট।

টম মুর বলেছেন, গত কয়েক বছর ধরে তাঁর মাথার হিপ প্রতিস্থাপন এবং ত্বকের ক্যান্সার উভয় থেকেই সেরে উঠতে সহায়তা করতে এনএইচএস ‘দুর্দান্ত’ হয়ে উঠেছে। ধন্যবাদ বলার উপায় হিসাবে, এই প্রাক্তন সিভিল ইঞ্জিনিয়ার ৩০ এপ্রিল তাঁর ১০০ তম জন্মদিনের মধ্য দিয়ে ১০০ বার দৈর্ঘ্য হাঁটার লক্ষ্য নিয়ে তার ২৫ মিটার দীর্ঘ বাগানে প্রতিদিন হাটার কাজ করেছেন। হাঁটতে সহায়তা করবে তাকে, এমন একজোড়া জুতা পরে নেন। পরেন তার সবচেয়ে সেরা ব্লেজার। রেজিমেন্টে ব্যবহৃত পুরনো একটি টাই। সঙ্গে সেনাবাহিনীতে সার্ভিস করার সময়ের মেডেল। গত সোমবার শুরু করেছিলেন, শুরুতে একসাথে এনএইচএস দাতব্য প্রতিষ্ঠানের জন্য ১০০০ পাউন্ড এর তহবিলের লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করেন, কেবলমাত্র তার বেডফোর্ডের মার্সটন মোরেইটেন গ্রাম থেকে সহায়তা আশা করেছিলেন।
এ নিয়ে সাক্ষাতকারে টম মুর বলেছেন, আকস্মিকভাবে আমরা তহবিলে পেয়ে গেলাম ৫০,০০০ পাউন্ড। তারপর তা এক লাখ পেরিয়ে গেল। আর এখন এই সংখ্যা অকল্পনীয়। তিনি বলেন এই সংখ্যা এখন ৩০ লাখ, ৪০ লাখ বা ৫০ লাখ দাঁড়াবে। আমি কিছু সময় অপেক্ষা করি। আবার ছুটতে শুরু করি। এতে অবিশ্বাস্য রকম অর্থ আসতে থাকে। এটা এমন একটা অর্থ যা আপনি দেখতে পাবেন না।
তবে গত সপ্তাহে তার এ তহবিল সংগ্রহের শিরোনাম হিট করার পরে তিনি দ্রুত তার টার্গেটটি ভেঙে দিয়েছেন। দিন দিন এই অর্থ বাড়তেই থাকে। দেড় দুই ঘন্টায় সেই অর্থ বাড়ছে ২০ লাখ বা ২৫ লাখ পাউন্ড করে। আজ বৃহস্পতিবার সকালে কমপক্ষে ৫ লাখ দাতা দান করেছেন এক কোটি ১০ লাখ পাউন্ডের বেশি। টম জানিয়েছেন এসব অর্থ যাবে করোনা ভাইরাস নিয়ে সম্মুখে থেকে যেসব স্বাস্থ্যকর্মী কাজ করছেন তাদের সমর্থনে এনএইচএস চ্যারিটিজ টুগেদার-এ।
টম বলেন, যে সাড়া পেয়েছি তা অলৌকিক। এমন অর্থ পেয়ে, সাড়া পেয়ে তিনি অভিভূত হয়ে বলেন, এতে তার বয়স যেন ২০ বছর কমে গেছে। তার ভাষায়, এটা এক বিস্ময় আমার কাছে। আমি কৃতজ্ঞ এ জন্য যে, সবাই আমাকে সমর্থন করেছেন। আমি আমার হৃদয় থেকে ব্রিটিশ জনসাধারণকে ধন্যবাদ জানাই।
টমের কন্যা, হানা ইঙ্গ্রাম-মুর, যিনি তার জন্য একটি তহবিল সংগ্রহ পেজ ‘জাস্ট গিভিং’ একাউন্ট তৈরি করেছিলেন, তিনি টুইটারে বলেছিলেন, ‘আমরা সবার সাড়া পেয়ে অভিভূত। এটি অসাধারণ। ব্রিটিশ জনগণের উদারতায় আমরা গর্বিত ও নম্র হয়েছি।

আরও পড়ুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আরও দেখুন...

Close
Back to top button
Close