লেবার পার্টির নতুন নেতা কেয়ার স্টারমার (ভিডিও)

যুক্তরাজ্যে লেবার পার্টির নতুন নেতা হিসেবে স্যার কেয়ার স্টারমারকে নির্বাচিত করা হয়েছে। নতুন নেতা হিসেবে তার নাম আজ শনিবার ঘোষণা করা হয়। তিনি জেরেমি করবিনের স্থলাভিষিক্ত হলেন। ২০১৫ সালে জেরেমি করবিন লেবার পার্টির নেতা নির্বাচিত হয়েছিলেন। সাধারণ নির্বাচনে হেরে গেলে পার্টির প্রধান পদ থেকে সরে যাওয়ার ঘোষণা দিয়েছিলেন করবিন। নির্বাচনে লেবার পার্টির পরাজয়ের পর নতুন নেতৃত্ব বাছাইয়ে তিন মাসের লড়াই শুরু হয়। স্যার কেয়ার স্টারমার, লিজা ন্যানডি, রেবেকা লং বেইলির মধ্যে একজনকে বেছে নিতে লেবার পার্টির সদস্যরা চলতি সপ্তাহের প্রথম দিকে ভোট দেন। আজ শনিবার কেয়ারের নাম ঘোষণা করা হয়। অ্যাঞ্জেলা রেনারকে ডেপুটি লিডার করা হয়েছে।
এক টুইট বার্তায় ৫৭ বছর বয়সী কেয়ার তার জয়ের কথা জানিয়ে লেখেন, এটি তার জীবনে সবচেয়ে বড় সম্মান। নির্বাচিত হওয়ার পর দলকে নতুন যুগে নিয়ে যাওয়ার ঘোষণা দিয়েছেন স্টারমার। আইনজীবী কেয়ার স্টারমার ২০১৫ সালে আইনপ্রণেতা নির্বাচিত হন। দলীয় নেতা নির্বাচনের প্রথম দফার ভোটাভুটিতে ৫০ শতাংশের বেশি ভোট পেয়েছিলেন তিনি। এবারে ৫৬.২ শতাংশ বা মোট দুই লাখ ৭৫ হাজার ৭৮০ ভোট পেয়ে নেতা নির্বাচিত হলে তিনি। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী রেবেকা লং- বেইলি পেয়েছে এক লাখ ৩৫ হাজার ২১৮ ভোট বা ২৭.৬ শতাংশ ভোট।
নিজেকে সোস্যালিস্ট দাবি করলেও করবিনপন্থী নন বলে দাবি আসছেন লন্ডনের হলবোর্ন অ্যান্ড সেন্ট পিটার্স আসন থেকে নির্বাচিত আইনপ্রণেতা কেয়ার স্টারমার। রেল, ডাক, পানি জাতীয়করণ এবং ইউনিয়নবিরোধী আইন বাতিলসহ করবিন আমলের মূল নীতিগুলো বহাল রাখার প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন তিনি। তবে তার প্রথম কাজ হতে যাচ্ছে করোনাভাইরাস মহামারীতে লেবার পার্টির ভূমিকার নেতৃত্ব দেয়া। এদিকে লেবার পার্টির উপনেতা নির্বাচিত হয়েছেন ছায়া শিক্ষামন্ত্রী অ্যাঞ্জেলা রায়নার। অপর চার প্রার্থীকে তুলনামূলক কম ব্যবধানে হারিয়ে নির্বাচিত হন তিনি।

আরও পড়ুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আরও দেখুন...

Close
Back to top button
Close