প্রিন্স হ্যারির সিদ্ধান্ত মেনেছে রাজপরিবার

রানী দ্বিতীয় এলিজাবেথ বলেছিলেন, সাসেক্সের ডিউক এবং ডাচেস রাজ পরিবারের ‘জ্যেষ্ঠ’ সদস্যের দায়িত্ব থেকে সরে যাওয়া এবং কানাডা ও যুক্তরাজ্যের মধ্যে পর্যায়ক্রমে বসবাস করার “স্থানান্তর প্রক্রিয়া” সিদ্ধান্ত মেনেছে রাজপরিবার। লন্ডন থেকে ১০০ মাইল দূরে পূর্ব ইংল্যান্ডের নোরফোকে রানীর স্যানড্রিংহাম এস্টেটে রানী দ্বিতীয় এলিজাবেথ, প্রিন্স চার্লস, প্রিন্স উইলিয়াম এবং হ্যারি মধ্যে আজ সোমবার আয়োজিত বৈঠকের পর এ বিবৃতি আসে।

বিবৃতিতে যা বলা হয়েছে, ‌‘আমার নাতি এবং তার পরিবারের ভবিষ্যৎ নিয়ে আজ খুব গঠনমূলক আলোচনা হয়েছে। হ্যারি এবং মেগানের তরুণ পরিবার হিসেবে এবং আকাঙ্ক্ষিত নতুন জীবনের সম্পূর্ণ সমর্থনকারী আমি ও আমার পরিবার। যদিও আমরা তাদের পূর্ণ-সময়ে রাজপরিবারের কর্মক্ষম সদস্য থাকার পক্ষে অগ্রাধিকার দিয়েছি, তাদের স্বচ্ছল জীবনযাপনের ইচ্ছাকে সম্মান করি এবং বুঝতে পারি এবং পরিবারটি আমার পরিবারে মূলবান অংশ ছিল।’

‘হ্যারি এবং মেগান স্পষ্ট জানিয়ে দিয়েছেন যে তারা তাদের নতুন জীবনে পাবলিক ফান্ডের উপর নির্ভর করতে চান না।’ ‘তবে একমত হয়েছে তারা ‘স্থানান্তর প্রক্রিয়ায়’ কানাডা এবং যুক্তরাজ্যে বসবাস করবে।’ ‘বিষয়টি জটিল আমার পরিবারের পক্ষে সমাধানের জন্য, আরও কিছু কাজ করার দরকার রয়েছে, তবে আমি আগামী দিনগুলিতে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেওয়ার জন্য বলেছি।’

আরও পড়ুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আরও দেখুন...

Close
Back to top button
Close