আইফোন ১১প্রো ও ১১প্রো ম্যাক্স উন্মোচন করল অ্যাপল

নতুন আইফোন ঘিরে উন্মাদনা থাকে সারাবিশ্বের প্রযুক্তিপ্রেমী মানুষের মধ্যে। নব্য প্রযুক্তির ছোঁয়া লাগা ফোনটি সংগ্রহ করা ছাড়াও অনেক পাঠকের আগ্রহ থাকে ফোনটির সর্বশেষ সংস্করণের বিভিন্ন ফিচার ও স্পেসিফিকেশন নিয়ে। গত বছর উন্মোচন হওয়া আইফোন এক্সএস আর আইফোন এক্সএস ম্যাক্সের উত্তরসূরি হিসেবে এবার উন্মোচন হলো আইফোন ১১ প্রো ও ১১ প্রো ম্যাক্সের। এর মাধ্যমে প্রথমবারের মতো প্রো সিরিজের আইফোন উন্মোচন করল মার্কিন টেকজায়ান্ট অ্যাপল। খবর এনডিটিভি’র।

মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে মঙ্গলবার উন্মোচন করা হয়েছে আইফোন ১১ প্রো ও ১১ প্রো ম্যাক্সের। অ্যাপল এবার আইফোনের ক্যামেরাকে বেশি প্রাধান্য দিয়েছে। নতুন ফোন দুটিতে রয়েছে ৫.৮ ইঞ্চি আর ৬.৫ ইঞ্চি সুপার রেটিনা এক্সডিআর ওএলইডি ডিসপ্লে আর তিনটি রিয়ার কামেরা। ফোন দুটি পানি বা ধুলোয় কিছু হবে না বলে জানিয়েছে প্রস্তুতকারক প্রতিষ্ঠানটি।

এদিকে আইফোন ১১, আইপ্যাড (১০.২ ইঞ্চি), অ্যাপল ওয়াচ সিরিজ-৫ ছাড়াও একাধিক হার্ডওয়্যার পণ্যের সাথেই অ্যপাল টিভি প্লাস আর অ্যাপল অ্যার্কেড সাবস্ক্রিপশন সেবাও উন্মোচন করেছে কুপার্টিনোর কোম্পানিটি।

আইফোন ১১ প্রো ও আইফোন ১১ প্রো ম্যাক্সের দাম
মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে আইফোন ১১ প্রো’র দাম শুরু হচ্ছে ৯৯৯ মার্কিন ডলার (প্রায় ৮৪ হাজার ৯১৫ টাকা) থেকে। আইফোন ১১ প্রো’র বেস ভেরিয়েন্টে থাকছে ৬৪ জিবি স্টোরেজ। তবে ২৫৬ জিবি স্টোরেজ আর ৫১২ জিবি স্টোরেজে আইফোন ১১ প্রো কিনতে লাগবে এক হাজার ১৪৯ মার্কিন ডলার (প্রায় ৯৭ হাজার ৬৬৫ টাকা)।

অপরদিকে আইফোন ১১ প্রো ম্যাক্সের দাম শুরু হচ্ছে এক হাজার ৯৯ মার্কিন ডলার (প্রায় ৯৩ হাজার ৪১৫ টাকা) থেকে। ফোনটির বেস ভেরিয়েন্টে থাকছে ৬৪ জিবি স্টোরেজ। আর ২৫৬ জিবি স্টোরেজ এবং ৫১২ জিবি স্টোরেজে আইফোন ১১ প্রো ম্যাক্স কিনতে লাগবে এক হাজার ২৪৯ মার্কিন ডলার (প্রায় এক লাখ ছয় হাজার ১৬৫ টাকা)।

আইফোন ১১ প্রো আর আইফোন ১১ প্রো ম্যাক্সের স্পেসিফিকেশন
অ্যাপল জানিয়েছে, আইফোন ১১ প্রো আর আইফোন ১১ প্রো ম্যাক্স কোম্পানির সবথেকে ‘শক্তিশালী’ আর ‘উন্নত’ স্মার্টফোন। এ দুই ফোনে আইওএস ১৩ অপারেটিং সিস্টেম চলবে।

ফোন দুটিতে রয়েছে ৫.৮ ইঞ্চি আর ৬.৫ ইঞ্চি সুপার রেটিনা এক্সডিআর ওএলইডি ডিসপ্লে। ফোনের ভেতরে রয়েছে এ১৩ বায়োনিক চিপ। আইপি৬৮ সার্টিফায়েড এ দুই ফোনে পানি ও ধুলোতে কোন ক্ষতি হবে না।

এছাড়া ফোন দুটির পেছনে থাকছে তিনটি করে ক্যামেরা। পেছনে একটি ১২ মেগাপিক্সেল প্রাইমারি সেন্সরের সাথে থাকছে একটি ১২ মেগাপিক্সেল ওয়াইড অ্যাঙ্গেল ক্যামেরা এবং একটি ১২ মেগাপিক্সেল টেলিফটো ক্যামেরা। আর সেলফি তোলার জন্য সামনে থাকছে ১২ মেগাপিক্সেল ক্যামেরা।

আইফোন ১১ প্রো ফোনে আইফোন এক্সএস থেকে ৪ ঘণ্টা বেশি ব্যাকআপ পাওয়া যাবে। আর আইফোন ১১ প্রো ম্যাক্স ফোনে আইফোন এক্সএস ম্যাক্সের থেকে ৫ ঘণ্টা বেশি ব্যাকআপ পাওয়া যাবে।

আরও পড়ুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আরও দেখুন...

Close
Back to top button
Close