আস্থা ভোটে টিকে গেছেন ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী

৬৩ শতাংশ কনজারভেটিভ এমপির সমর্থন

ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী থেরেসা মে এ যাত্রায় ক্ষমতায় টিকে গেছেন। আজ বুধবার রাতে ব্রিটিশ পার্লামেন্টের হাউজ অব কমন্সে অনুষ্ঠিত আস্থা ভোটে তিনি সংখ্যাগরিষ্ঠতা পেয়েছেন। তবে তার ওপর ব্রেক্সিট নীতি নিয়ে চাপ অব্যাহত রয়েছে। আস্থাভোটে থেরেসা মে’র পক্ষে ভোট পড়েছে ২০০। তার বিপক্ষে ভোট দিয়েছেন ১১৭ জন। অর্থাৎ ৬৩ শতাংশ কনজারভেটিভ এমপির সমর্থন পেয়েছেন তিনি। আর বিপক্ষে ভোট দিয়েছে ৩৭ শতাংশ। এই ফলাফলের মাধ্যমে আরও অন্তত এক বছরের জন্য কনজারভেটিভ পার্টির সংসদীয় প্রধানের পদ নিশ্চিত করলেন মে। এই সময়ের মধ্যে তার বিরুদ্ধে আর আস্থা ভোটের দাবি গৃহীত হবে না। তবে এ যাত্রায় টিকে গেলেও দলের ভেতরে আস্থার সঙ্কটের বিষয়টি এই ভোটাভুটিতে স্পষ্ট হয়েছে থেরেসা মের সামনে।

উল্লেখ্য, ইইউ থেকে যুক্তরাজ্যের বেরিয়ে যাওয়ার শর্ত নির্ধারণে যে ব্রেক্সিট চুক্তির খসড়া প্রস্তুত করেছেন, তা নিয়েই এই অনাস্থার সূত্রপাত। এনিয়ে দুই দুই জন ব্রেক্সিটবিষয়ক মন্ত্রীর পাশাপাশি পদত্যাগ করেছিলেন ব্রিটিশ পররাষ্ট্রমন্ত্রীও। এ ধারা থামেনি। একে একে আরও কয়েকজনের সঙ্গে সর্বশেষ যুক্তরাজ্যের বিজ্ঞান ও বিশ্ববিদ্যালয় বিষয়ক প্রতিমন্ত্রী পদত্যাগ করেন মের ব্রেক্সিট বিষয়ক চুক্তির বিরোধিতা করে। এমন অবস্থায় খোদ ব্রিটিশ কনজারভেটিভ পার্টির সদস্যরাই তার বিরুদ্ধে অনাস্থা জানান।

আস্থা ভোটের ডাক দেওয়ার জন্য দরকার ছিল ৪৮ জন কনজারভেটিভ পার্টির সংসদ সদস্যের আবেদন। দলের কাছে সেই ৪৮ জনের আবেদন জমা পড়ার প্রেক্ষিতে বৃহস্পতিবার অনুষ্ঠিত হয়েছে ভোটাভুটি। টিকে থাকার জন্য মের দরকার ছিল ১৫৯ ভোট। ১৭৪ জন টোরিই এমপি ভোটের আগেই জানিয়ে দিয়েছিলেন, তারা মের পক্ষে ভোট দেবেন। আর বিপক্ষে ভোট দেওয়ার কথা প্রকাশ্যে জানিয়েছিলেন ৩৪ জন।

আরও পড়ুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আরও দেখুন...

Close
Close