আল-কুদস দিবস: বিশ্বমানবতার জাগরণের দিন

আজ শুক্রবার জুমাতুল বিদা ও আন্তÍর্জাতিক আল-কুদস দিবস। রমজানের শেষ জুমার দিনকে জুমাতুল বিদা বলা হয়। জুমার দিন মুসলমানদের জন্য এমনিতেই অন্যান্য দিনের তুলনায় বেশি মর্যাদাপূর্ণ। রমজানের জুমা হওয়ায় আরো বেশি আলাদাভাবে দেখা হয় দিনটিকে। কুদস অর্থ পবিত্র। আল-কুদস বলতে বোঝায় ফিলিস্তিনের জেরুসালেমে পবিত্র ভূমিতে অবস্থিত পবিত্র মসজিদ, যা মসজিদুল আকসা বা বায়তুল মুকাদ্দাস নামে পরিচিত। মুসলমানদের প্রথম কিবলা ছিল এই বায়তুল মুকাদ্দাস। ইহুদিদের জবরদখল থেকে এই পবিত্র মসজিদটির মুক্তির লক্ষ্যে প্রতীকী দিন হিসেবে প্রতি বছর রমজানে জুমাতুল বিদার দিনকে আল-কুদস দিবস হিসেবে পালন করে আসছে বিশ্ব মুসলিম।
বায়তুল মুকাদ্দাস মুসলমানদের কাছে সব সময় অত্যন্ত পবিত্র ও সম্মানিত। ইতিহাসের নানা পরিক্রমায় নানা ঘটনাপ্রবাহের পর ফিলিস্তিনের মূল অধিবাসীদের অধিকাংশকে বিতাড়িত করে ১৯৪৮ সালের ১৫ মে ইহুদিরা সেখানে অবৈধ রাষ্ট্র ইসরাইল কায়েম করে। তখন থেকে মুসলমানদের প্রতি ইহুদিদের জুলুম, নির্যাতন ও অত্যাচারের মাত্রা বাড়তে থাকে। তাই আজ সময় এসেছে বিশ্ব মুসলিমের ঐক্যবদ্ধ হওয়ার। বিশ্বের সব মানবতাবাদী মানুষকে এ সংগ্রামে সর্বাত্মক সমর্থন জানাতে হবে। কারণ ফিলিস্তিনের ইস্যু কেবল মুসলমানদের ইস্যু নয়, এটি একটি মানবতাবাদী ইস্যু। ইসরাইল ফিলিস্তিন ইস্যুকে ইসরাইল ও ফিলিস্তিনের মধ্যে সমস্যা হিসেবে চিহ্নিত করতে চায়। ইসরাইল মসজিদুল আকসা জবরদখল করে নেয় ১৯৬৭ সালে। এর পর থেকে মুসলিম জনগণ স্বাধীনতাযুদ্ধের সূচনা করে।
ইহুদিদের ঘৃণ্য পরিকল্পনা সচেতন মুসলমানদের সংগ্রামী প্রতিরোধ আন্দোলনের মুখে পরিপূর্ণভাবে সফল হতে পারেনি। সারা বিশ্বের বিভিন্ন দেশের জনগণ ফিলিস্তিনি মুসলিমদের এ প্রতিরোধ আন্দোলন সমর্থন করে আসছে। ১৯৭৯ সাল থেকে আল-আকসা মসজিদ মুক্তির লক্ষ্যে সমগ্র মুসলিম উম্মাহ প্রতি বছর আল-কুদস দিবস পালন করে আসছে। জুমার নামাজের পর মসজিদুল আকসা মুক্তির জন্য বিশেষ দোয়া করা হয়।

আরও পড়ুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আরও দেখুন...

Close
Back to top button
Close