দ্বিতীয় মেয়াদের প্রথম বছর পূর্ন করলেন মেয়র জন বিগস

৩ মে, শুক্রবার টাওয়ার হ্যামলেটসের নির্বাহী মেয়র জন বিগস তার দ্বিতীয় মেয়াদের প্রথম বছর পূর্ণ করেছেন। ২০১৮ সালের ৩ মে, জন বিগস রেকর্ডসংখ্যক ভোট পেয়ে লেবার পার্টি থেকে মেয়র নির্বাচিত হয়েছিলেন। একই দিন লেবার পার্টি থেকে মোট ৪৫ জনের মধ্যে ৪২ জন কাউন্সিলারও নির্বাচিত হয়েছিলেন।

দ্বিতীয় মেয়াদের প্রথম বছর উপলক্ষে দেয়া এক বিশেষ বিবৃতিতে মেয়র জন বিগস তার প্রতিক্রিয়ায় বলেন, দ্বিতীয় মেয়াদে নির্বাচনের পর অর্থাৎ গত এক বছরে আমাদের অর্জন নিয়ে আমি গর্বিত। টোরী সরকারের অব্যাহত বাজেট কাটের বিপরীতে কাউন্সিলের পক্ষে গুরুত্বপূর্ন সার্ভিস রক্ষা করা সত্যিকার অর্থেই কঠিন হয়ে উঠেছে। তারপরও আমরা প্রায়োরিটি নির্ধারনের মাধ্যমে বাসিন্দাদের জন্য জরুরী সার্ভিসগুলো রক্ষা করে চলেছি। আমরা পুলিশ সার্ভিস, ময়লা আবর্জনা পরিষ্কার, চিলন্ড্রেন সার্ভিস, নতুন কাউন্সিল বাড়ী নির্মান ইত্যাদিতে অতিরিক্ত বিনিয়োগ করেছি।

বিশেষ করে প্রতিশ্রুতি মোতাবেক ২০০০ হাজার কাউন্সিল বাড়ী নির্মান প্রক্রিয়া দ্রুততার সাথে এগিয়ে যাচ্ছে। নতুন কাউন্সিল হাউজিং স্কিম এবং অস্থায়ী আবাসনের জন্য আমি ৩৩২ মিলিয়ন পাউন্ড বিনিয়োগ করেছি। কাউন্সিল সাপোর্টেড পুলিশ অফিসাররা অপারেশন কনটিনাম চলাকালে ১৯০ জন ড্রাগ ডিলারকে গ্রেফতারে এবং আরো ১০০ জন ড্রাগ ব্যবহারকারীকে চিক্সিায় সহযোগিতা করেছেন। আমাদের কর্মসংস্থান প্রকল্প ওয়ার্কপাথের মাধ্যমে আমরা প্রায় ১১শ বাসিন্দাকে গত বছর সহযোগিতা করেছি। ফ্রি স্কুল মিল, আইডিয়া স্টোর, লেইজার সেন্টার, চিলন্ড্রেন সেন্টার, ইয়ুথ সার্ভিস ইত্যাদিতে আমরা বিনিয়োগ অব্যাহত রেখেছি।

মেয়র আরো বলেন, ২০১৮ সালের কাউন্সিল নির্বাচনের ফলাফলটি সত্যিকার অর্থেই ছিলো একটি টার্নিং পয়েন্ট। বারার বাসিন্দারা সেদিন সকল এলোমেলো ভাবনাকে পিছনে ফেলে সামনে এগিয়ে যাবার পরিষ্কার বার্তা দিয়েছিলেন। আমি আনন্দিত যে, আমরা বাসিন্দাদের নির্দেশনা মতোই এগিয়ে যাচ্চিছ। আগামী ৩ বছর আমরা আমাদের মেনিফেস্টু বাস্তবায়নে সর্বাত্মক চেষ্টা চালিয়ে যাবো।

উল্লেখ্য যে, ২০১৮ সালের ৩ মে অনুষ্টিত টাওয়ার হ্যামলেটস কাউন্সিলের মেয়র নির্বাচনে জন বিগস প্রথম এবং দ্বিতীয় পছন্দ মিলিয়ে ৪৪ হাজার ৮শ ৬৫ ভোট (৭২.৭%) পেয়ে নির্বাচিত হন। টাওয়ার হ্যামলেটসের মেয়র নির্বাচনের ইতিহাসে এটি ছিলো কোন মেয়র প্রার্থীর সবোচ্চর্চ ভোট প্রাপ্তি। জন বিগসের নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বি কাউন্সিলার রাবিনা খান প্রথম এবং দ্বিতীয় পছন্দ মিলিয়ে লাভ করেন ১৬ হাজার ৮শ ৭৮ ভোট (২৭.৩%)। প্রথম পছন্দে জন বিগস ৩৭ হাজার ৬শ ১৯ ভোট (৪৮.৪%) এবং রাবিনা খান ১৩ হাজার ১শ ১৩ ভোট (১৬.৯%) লাভ করেছিলেন। নির্বাচনে তৃতীয়স্থান লাভকারী কাউন্সিলার ওহিদ আহমদ ১১ হাজার ১শ ৯ (১৪.৩%) এবং চতুর্থ স্থান লাভকারী কনজারভেটিবের আনোয়ারা আলী ৬ হাজার ১শ ৪৯ ভোট (৭.৯%) লাভ করেছিলেন। এগুলো ছিলো তাদের প্রথম পছন্দের ভোট। টাওয়ার হ্যামলেটসের সেই নির্বাচনে মোট ১শ ৯১ হাজার ২শ ৪৬ জন ভোটারের মধ্যে ৮০ হাজার ২শ ৫২ জন ভোট প্রদান করেন। শতকরা হিসাবে এই সংখ্যা হচ্চেছ ৪১.৯৬%। এর মধ্যে পোস্টাল ভোট ছিলো ১৯ হাজার ৮৩টি।

আরও পড়ুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আরও দেখুন...

Close
Close