লন্ডন বইমেলায় শিল্প-সংস্কৃতি পুরস্কার পেলেন নিউইয়র্কের বিশ্বজিত সাহা

বাংলাদেশের বাইরে বাংলা সাহিত্য-সংস্কৃতি-শিল্প ও মননের বিকাশ ও চর্চায় নিরলস অবদানের জন্য ইংল্যান্ডে সম্মিলিত সাংস্কৃতিক পরিষদ, ইউকে-এর প্রথম বারের মতো প্রবর্তিত পুরস্কারটি পেয়েছেন মুক্তধারা নিউইয়র্ক-এর কর্ণধার ও নিউইয়র্ক বইমেলার প্রতিষ্ঠাতা বিশ্বজিত সাহা। ২৪ সেপ্টেম্বর লন্ডনে ৮ম বইমেলা উপলক্ষে ঘোষিত হয়েছে এই পুরস্কার। ২৩ ও ২৪ সেপ্টেম্বর রবি ও সোমবার সম্মিলিত সাংস্কৃতিক পরিষদ, ইউকে এই মেলা অনুষ্ঠিত হয়েছে। এই মেলায় প্রধান অতিথি হিসেবে যোগ দিয়েছেন বাংলাদেশের কবি আসাদ মান্নান। বই মেলার উদ্বোধন করেন বিশিষ্ট সাংবাদিক ও সাহিত্যিক আবদুল গাফফার চৌধুরীসহ অতিথিরা।

লন্ডনের এই বইমেলায় ঢাকা থেকে আগামী, অনিন্দ্য প্রকাশন, অন্যপ্রকাশ, উৎস, ইত্যাদি, নালন্দা, বাসিয়া -সহ বেশ কয়েকটি স্টল যোগ দিয়েছে। রয়েছে ইংল্যান্ডের বেশ কিছু স্টল। এবারের বইমেলায় যুক্তরাজ্যপ্রবাসী প্রয়াত সাংবাদিক আবদুল মতিন ও তাসাদ্দুক আহমেদের নামে নতুন দুটো পদক ঘোষণা দেয়। এবার আবদুল মতিন সাহিত্য পদক পেয়েছেন কবি রব্বানী চৌধুরী। তাসাদ্দুক আহমদ শিল্প ও সংস্কৃতি পদক পেয়েছেন নিউইয়র্ক মুক্তধারার কর্ণধার বিশ্বজিত সাহা।
একই সময়ে নিউইয়র্কে ‘বাংলাদেশ বাণিজ্য মেলা’র সাংগঠনিক কাজে ব্যস্ত থাকায় বিশ্বজিত সাহা লন্ডনে উপস্থিত থাকতে পারেন নি। এই সম্মাননা ও পদক তাঁর পক্ষে ইংল্যান্ডে গ্রহণ করেন বাংলাদেশ থেকে আগত ইত্যাদি গ্রন্থ প্রকাশের অন্যতম পরিচালক আদিত্য অন্তর।
বাংলা সাহিত্য-সংস্কৃতি, শিল্প, মননের বিকাশ ও চর্চায় বিশ্বজিত
নিইউইয়র্কের বাংলা বইমেলার পথিকৃৎ সংগঠক হিসেবে বহুল পরিচিত বিশ্বজিত সাহার জন্ম নোয়াখালী জেলার লতিবপুর গ্রামে। চৌমুহনী থেকে মাধ্যমিক, উচ্চমাধ্যমিক ও স্নাতক ডিগ্রি লাভের পর ঢাকায় চলে আসেন। ১৯৮৫ সালে বাংলাদেশের প্রকাশনা জগতের অন্যতম কৃতী পুরুষ প্রয়াত চিত্তরঞ্জন সাহার মুক্তধারা ও পুথিঘর লিঃ-এ যোগ দেন। পরে বিশ্বজিত সাহা সাংবাদিকতাকে পেশা হিসাবে গ্রহণ করেন। প্রকাশনা ও সাংবাদিকতার মধ্য দিয়ে শুরু হয় তাঁর পথচলা। এরপর ১৯৯১ সালে তিনি যুক্তরাষ্ট্র প্রবাসী হন এবং সেখানে বাংলা ভাষা, সাহিত্য ও প্রকাশনা জগতের সঙ্গে নিজেকে যুক্ত করেন।

আরও পড়ুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আরও দেখুন...

Close
Close