টাকার বিনিময়ে নাগরিকত্ব দেবে মিসর

Egyptমিসর সরকার অর্থের বিনিময়ে বিদেশীদেরকে মিসরের নাগরিকত্ব দেয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে। গত সোমবার মিসরীয় পার্লামেন্টে পাস হওয়া এক সংশোধনীতে বলা হয়েছে, যেকোনো বিদেশী মিসরের নাগরিকত্ব পেতে চাইলে তাকে কমপক্ষে ৭০ লাখ পাউন্ড (৩ লাখ ৯২ হাজার মার্কিন ডলার) নিয়ে দেশটিতে যেতে হবে এবং পাঁচ বছর পর তা মিসরের অর্থবিভাগে জমা দিতে হবে।
২০১১ সালের গোড়ার দিকে প্রবল গণঅভ্যুত্থানে তৎকালীন স্বৈরশাসক হোসনি মুবারক সরকারের পতন হয়। ওই গণআন্দোলনের জের ধরে মিসর থেকে হাজার হাজার কোটি ডলারের পুঁজি বেরিয়ে যায়। এ কারণে বিদেশী পুঁজি আকৃষ্ট করার লক্ষ্যে মিসরের পার্লামেন্ট এ বিল পাস করেছে বলে মনে করা হচ্ছে।
বিলে বলা হয়েছে, বিদেশী নাগরিকরা ৭০ লাখ মিসরীয় পাউন্ড বা সমমানের বৈদেশিক মুদ্রা মিসরের কোনো ব্যাংকে জমা রাখলে এবং পাঁচ বছর পর সেই অর্থ কায়রোর অর্থ মন্ত্রণালয়ে হস্তান্তর করলে তাকে মিসরের নাগরিকত্ব দেয়া হবে। এই পাঁচ বছর অর্থ জমাদানকারী ব্যক্তিকে মিসরে বসবাস করতে হবে।
তবে মিসরে বিদেশী পুঁজি বিনিয়োগের ওপর কিছু সীমাবদ্ধতা থাকায় এই আইনের মাধ্যমে এখনো একথা স্পষ্ট নয় যে, বিদেশীরা মিসরের নাগরিকত্ব পাওয়ার পর দেশটিতে কী ধরনের অর্থনৈতিক তৎপরতা চালাতে পারবে। মিসরীয় পার্লামেন্টের প্রতিরক্ষা ও জাতীয় নিরাপত্তা কমিটির প্রধান জেনারেল কামাল আমের বলেছেন, নাগরিকত্ব পাওয়ার প্রথম পাঁচ বছর বিদেশীদের কোনো রাজনৈতিক তৎপরতা চালানোর অধিকার থাকবে না। এ ছাড়া, পার্লামেন্ট নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করার জন্য মিসরের নাগরিকত্ব পাওয়ার পর ১০ বছর অতিক্রান্ত হতে হবে।
তিনি আরো জানিয়েছেন, মিসরের নাগরিকত্ব অর্জনকারী ব্যক্তির স্বামী বা স্ত্রী এবং সন্তানরা মিসরে গিয়ে স্থায়ীভাবে বসবাস না করা পর্যন্ত তাদেরকে নাগরিকত্ব দেয়া হবে না।

আরও পড়ুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আরও দেখুন...

Close
Close