হোম অফিসের নতুন শাখা নিয়ে নিউহাম কাউন্সিলের সাথে মতবিরোধ

২০ নভেম্বরের মধ্যে পিটিশনে সবাইকে মতামত দেয়ার অনুরোধ

পূর্ব লন্ডনের নিউহামে বৃটিশ হোম অফিস এবার তাদের নতুন শাখা খুলতে যাচ্ছে। কিন্তু এই নিয়ে নিউহাম কাউন্সিলের সাথে তাদের মতবিভ্রাট দেখা দিয়েছে। সম্প্রতি নিউহাম কাউন্সিলের মেয়র রোকসানা ফায়াইজ ওবিই এর বক্তব্য থেকে এই বিষয়টি জানা যায়। পূর্ব লন্ডনের রয়্যাল ভিক্টোরিয়া ডকসে অবস্থিত ওয়ারহাউস কে বিল্ডিংয়ে হোম অফিস তাদের নতুন শাখা স্থানান্তরের পরিকল্পনা হাতে নিয়েছ। এই লিস্টেড ভবনটি একসময় তামাক প্রস্তুতের কারখানা হিসেবে ব্যবহৃত হতো। ১৮৫০-৫৫ সালে এই বিল্ডিংটি নির্মিত করা হয়।

২০১৯ সালের অক্টোবরে হোম অফিস তাদের প্রতিদিনের অফিস কার্যক্রম পরিচালনার জন্য এই লিস্টেড বিল্ডিংটি ব্যবহারের অনুমতি চেয়ে নিউহাম কাউন্সিলের কাছে আবেদন করে। কিন্তু পরবর্তীতে কাউন্সিল কর্তৃপক্ষ জানতে পারে এই বিল্ডিংটি ডিটেনশন সেন্টার হিসেবে ব্যবহার করা হবে যা হোম অফিস কখনো তাদের বর্ণনায় উল্লেখ করেনি।
এই স্পর্শকাতর বিষয়টি নিয়ে নিউহাম কাউন্সিলের মেয়র রোকসানা ফায়াইজ ওবিই বলেন, হোম অফিসের এই বিতর্কিত সিদ্ধান্ত আমাদেরকে সত্যিই শংকিত করে তুলেছে কারণ তারা ওয়ারহাউস কে বিল্ডিংটি শুধু প্রতিদিনের দাপ্তরিক কাজের ব্যবহারের জন্য আবেদন করেছিলো। কিন্তু পরবর্তীতে আমাদের প্লানিং টিম জানতে পারে হোম অফিস এই বিল্ডিং এ ৩৫ টি ছোট্ট কারাগার নির্মাণ করবে যা দিনের ২৪ ঘন্টার জন্য ডিটেনশন সেন্টার হিসেবে ব্যবহার করা হবে। কিন্তু এই বিষয়টি হোম অফিসের আমাদের কছে উল্লেখ করেনি।
আমাদের নিউহাম কাউন্সিলে বিশ্বের বিভিন্ন দেশের অভিবাসীদের বসবাস। আর এখানে আমরা সবাই শান্তি এবং সৌম্যের সাথে দীর্ঘদিন থেকে স্থানীয় এলাকার উন্নয়নে কাজ করছি। ২০১২ সালে লন্ডন অলিম্পিক সহ বিভিন্ন জাতীয় ইতিহাসের পাশে নিউহাম কাউন্সিলের নাম রয়েছে। এছাড়া মেয়র অব লন্ডনের অফিস আমাদের এলাকায় স্থানান্তর হবে। করোনা মহামারীকালীন সময়ে লন্ডন এক্সেল এ নাইটিঙল হসপিটাল চালু করা হয়। এছাড়া আমরা উইন্ডরাশ প্রজন্মের সাথে কাজ করে আসছি তাদের দাবী আদায়ে। এসবের মধ্যে হোম অফিসের ডিটেনশন সেন্টার নির্মাণ সত্যিই আমাদের নিউহাম কাউন্সিলের আদর্শের সাথে সাংঘর্ষিক।
ফিনান্সিয়াল টাইমস এবং গার্ডিয়ান-এ প্রকাশিত সংবাদে টোরি সরকারের হোম মিনিষ্টার প্রীতি প্যাটেল বলেছেন, সরকার যুক্তরাজ্যের বাইরে মলদোভা এবং পাপুয়া নিউ গিনির মতো স্থানে আশ্রয় শিবির স্থাপনের কথা বিবেচনা করছে। এতে প্রমাণিত হয় যে, শরণার্থী এবং আশ্রয়ের জন্য “বৈরী পরিবেশ” কে তারা চালু রেখেছে।
নিউহাম কাউন্সিলের মেয়র রোকসানা ফায়াইজ ওবিই আরও বলেন, আমি সবাইকে আহবান জানাচ্ছি অভিবাসীদের জন্য হোম অফিসের “বৈরী পরিবেশ”র বিরুদ্ধে আমাদের সবাইকে ঐক্যবদ্ধ হতে হবে। অভিবাসীদের জন্য বৃটেনের ঐতিহ্যকে সমুন্নত রাখতে একসাথে সততার সাথে কাজ করতে হবে।
টা্ওয়ার হ্যামলেটসের মেয়র জন বিগস, নিউহাম কাউন্সিলের মেয়রের সাথে তার ঐক্য ও সমর্থন প্রকাশ করে বলেন, নিউহামে হোম অফিসের ডিটেনশন সেন্টার নির্মাণের পদক্ষেপ সত্যিই আমাদের পূর্ব লন্ডনের ঐত্যিহ্য আর সংস্কৃতির সাথে সামঞ্জস্যপূর্ণ নয়। কারণ এখানে কয়েক যুগ ধরে অভিবাসীদের বসবাস। যাদের ৩য় কিংবা ৪র্থ প্রজন্ম আজ বৃটেনের উন্নয়নসহ বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ জায়গায় কাজ করছে। তাই আমি স্থানীয় লোক সহ সবাইকে এই সিদ্ধান্তের বিরুদ্ধে দাড়াঁনোর জন্য অনুরোধ করছি।
হোম অফিসের প্রতিনিধি বলেছেন, নিউহাম কাউন্সিলের অনুরোধ অনুসারে, আমরা এখন ব্যবহারের প্রয়োগের পরিবর্তন করব এবং যদি কাউন্সিল অনুমোদন করে, তবে বেকেট হাউস থেকে কর্মীরা রয়্যাল ভিক্টোরিয়া ডকসের নতুন সাইটে স্থানান্তরিত হবে।
নিউহামের স্থানীয় জনগণ হোম অফিসের ডিটেনশন সেন্টার নির্মাণের বিরুদ্ধে বিভিন্ন আন্দোলন এবং পদক্ষেপ গ্রহণ করেছেন। তারা এলাকাবাসীর সাথে আলোচনার মাধ্যমে এর বিরুপ প্রতিক্রিয়া কি হতে পারে তা নিয়ে আলোচনা করছেন। জনগণের মধ্যে হোম অফিসের “বৈরী পরিবেশ” এর বিষয়ে সচেতনতা গড়ে তোলার লক্ষে তারা লন্ডনের বিভিন্ন এলাকায় বিশেষ কার্যক্রম পরিচালনা করছেন।
আগামী ২০ নভেম্বরের মধ্যে নিউহামের রয়্যাল ভিক্টোরিয়া ডকসে অবস্থিত ওয়ারহাউস কে বিল্ডিং এ হোম অফিসের ডিটেনশন সেন্টার নির্মাণের বিরুদ্ধে মতামত দেয়ার জন্য এই পিটিশনে নাম দেয়ার জন্য সবাইকে অনুরোধ করা হচ্ছে।
https://www.change.org/p/stop-all-charter-flight-mass-deportations-to-jamaica-other-commonwealth-countries-jamaica50/u/27864889

আরও পড়ুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আরও দেখুন...

Close
Back to top button
Close