ব্রিটেনের মধ্যে নিউহ্যামে গৃহহীনদের হার সর্বোচ্চ

সম্প্রতি হাউজিং চ্যারিটি ‘শেল্টার’ এর এক প্রতিবেদনে জানা গেছে, ব্রিটেনের মধ্যে নিউহ্যামে গৃহহীনদের হার সর্বোচ্চ। কাউন্সিল জানিয়েছে, সামাজিক ভাড়াটে সম্পত্তি, উচ্চ ভাড়া ও বেনিফিটের পরিবর্তন লোকজনকে অধিক সংখ্যায় গৃহহীনতার দিকে ঠেলে দিচ্ছে, যা ‘শেল্টার’ এর বার্ষিক প্রতিবেদন অনুসারে বারার ২৪ জনের মধ্যে ১ জনকে ক্ষতিগ্রস্ত করেছে (মোট সংখ্যা ১৪৫৩৫)।

ডেপুটি মেয়র জন গ্রে বলেন, কাউন্সিল সংকট মোকাবেলায় গুরুত্বপূর্ণ পদক্ষেপ নিয়েছে যার মধ্যে এর ‘স্ট্রিট আউটরীচ টিমে’র স¤প্রসারণ, ডে সার্ভিস প্রভিশন এবং একটি ‘হাই নীড রাফ স্লিপার’ ইউনিটে অর্থায়নের বিষয়টি অন্তর্ভুক্ত। ‘শেল্টার’ এর নতুন সংখ্যা থেকে প্রকাশ, ২৮০০০ জন লোক, প্রতি ২০০ জনে ১ জন- ইংল্যান্ডে গৃহহীন হিসেবে রেকর্ডভুক্ত এবং লন্ডনে প্রতি ২৮ টির মধ্যে ৩ টি চরম ভাবে ক্ষতিগ্রস্ত স্থানীয় কতৃপক্ষ, যেখানে প্রাইভেট ভাড়া অস্বাভাবিক বেশী।

নিউহ্যামের পর খারাপ হার হ্যারিংগি, কেনসিংটন ও চেলসীতে- যেখানে প্রতি ২৯ জনের ১ জন গৃহহীন। স¤প্রতি নিউহ্যাম গত এক দশকের মধ্যে প্রথম বারের মতো একটি নিবেদিত গৃহহীনতা ও ছিন্নমূল সংক্রান্ত স্ট্রাটেজী গ্রহণ করে, শেল্টার এর সহায়তায় যার উন্নয়ন সাধন করা হয় এবং এটা ২০২১ সালের ডিসেম্বর পর্যন্ত ২ বছর ব্যাপী চলবে। কাউন্সিলের নেতৃস্থানীয় সদস্য কাউন্সিলর গ্রে বলেন, ২০১৮ সালের মে মাসে এই প্রশাসন ক্ষমতায় আসার পর থেকে গৃহ সংকট মোকাবেলাকে অগ্রাধিকার প্রদান করেছে এবং এই এলাকায় উলে­খযোগ্য কার্য সম্পন্ন করেছে।

তিনি বলেন, আমরা এ সংকট মোকাবেলায় তাৎপর্যপূর্ণ রিসোর্স পরিচালনা করেছি এবং বার্ষিক অতিরিক্ত ১ দশমিক ৪ মিলিয়ন পাউন্ড ব্যয়ের ব্যবস্থা নিয়েছি, যা ছিন্নমূলদের সহায়তা সেবাকে উন্নত এবং অন্যান্য লোকজনকে গৃহহীন হওয়ার ঝুঁকি হ্রাস করবে।

‘গৃহসংস্থান বাড়াতে আমরা প্রকৃতপক্ষে সাধ্যের মধ্যে সোশ্যাল রেন্টেড বাড়িঘরের সংখ্যা বৃদ্ধি করছি। এক্ষেত্রে কমপক্ষে ১ হাজার বাড়ি নির্মাণের কাজ চলবে।
স্ট্যাটফোর্ড কেন্দ্রীয় এলাকায় ছিন্নমূলদের ব্যবস্থা করার জন্য একটি প্রচেষ্টা চলছে, যেখানে গ্রীষ্মকাল ব্যাপী বিপুুল সংখ্যক তাবু দেখা যায়। সামগ্রিকভাবে ৫২ জন রাফ স্লিপার অর্থ্যাৎ ভাসমান বা ছিন্নমূল লোকের গৃহসংস্থান করা হয়। ক্যানিং শহরের কারিতাস অ্যাংকর হাউসে অত্যন্ত প্রয়োজন রয়েছে এমন রাফ স্লিপারদের জন্য ২০ টি শয্যা বিদ্যমান। এখানে স্বাস্থ্য চিকিৎসা, অর্থ ও অভিবাসন পরামর্শ, আসক্তি ও মানসিক স্বাস্থ্য সহায়তা একই ছাদের নীচে বিদ্যমান ।

‘শেল্টার’ এর সরকারী উপাত্ত পর্যালোচনায় প্রতীয়মান হয় যে, ইংল্যান্ড প্রায় ২২০০০০ লোক গৃহহীন হওয়ার ঝুঁকিতে ছিলো গত বছর। ‘শেল্টার’ এর চীফ এক্সিকিউটিভ পলি নীট বলেন, গৃহহীনতা বিপর্যস্ত করে এবং মনের গভীর ক্ষত রেখে যায়। এই ক্রিসমাসে এখনো ইংল্যান্ডে ২৮০০০০ লোক গৃহহীন অবস্থায় রয়েছে। আরো অনেকে সেই তালিকায় যোগ দেয়ার অপেক্ষায়।

আরও পড়ুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আরও দেখুন...

Close
Back to top button
Close