মুখোমুখি পাক-ভারত

পুলওয়ামায় জঙ্গি হামলার জবাবে সীমান্ত রেখা পেরিয়ে পাক অধিকৃত কাশ্মীরে ঢুকে ভারতীয় বিমান বাহিনীর আকস্মিক হামলার পর জরুরি বৈঠক তলব করেছেন পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান। মঙ্গলবার সকাল ১১টার দিকে কাশ্মীর পরিস্থিতি নিয়ে আলোচনার জন্য দেশটির শীর্ষ পর্যায়ের কর্মকর্তাদের নিয়ে বৈঠকে বসেছেন তিনি।
এর আগে সকালের দিকে দেশটির পররাষ্ট্র মন্ত্রী শাহ মেহমুদ কুরেশি পাক অধিকৃত কাশ্মীরে ভারতীয় বিমানবাহিনীর হামলার পর সেখানকার বর্তমান পরিস্থিতি পর্যালোচনার জন্য জরুরি বৈঠক ডাকেন। বৈঠকে পাকিস্তানের সাবেক সচিব ও রাষ্ট্রদূতরা অংশ নেন।
মঙ্গলবার স্থানীয় সময় ভোর সাড়ে ৩টার দিকে ভারতীয় বিমান বাহিনী পাক অধিকৃত কাশ্মীরে ২১ মিনিটের বিমান হামলা পরিচালনা করে। হামলায় কাশ্মীরের চকোটি ও মুজাফ্ফারাবাদ, বালাকোটে জঙ্গিগোষ্ঠী জয়েশ-ই-মোহাম্মদের তিনটি লঞ্চপ্যাড ও কন্ট্রোল রুম আলফা-৩ ধ্বংস করা হয়েছে বলে দাবি করেছে ভারতীয় বিমানবাহিনী।
এছাড়া হামলায় অন্তত ২০০ থেকে ৩০০ সন্ত্রাসী নিহত হয়েছে বলে প্রাথমিকভাবে বিভিন্ন গণমাধ্যমের বরাতে দাবি করা হয়েছে। তবে পাকিস্তান আন্ত:বাহিনী জনসংযোগ পরিদফতর (আইএসপিআর) বলছে, সীমান্ত রেখা লঙ্ঘন করেছে ভারতীয় বিমানবাহিনীর জঙ্গিবিমান। তবে তাৎক্ষণিকভাবে জোরালো জবাব দেয়ায় পালিয়ে গেছে। ভারতীয় বিমান বাহিনী আকাশ সীমা লঙ্ঘন করেছে বলে অভিযোগ করেছেন পাকিস্তান সেনাবাহিনীর মুখপাত্র মেজর জেনারেল আসিফ গফুর।
এক টুইট বার্তায় গফুর বলেছেন, মুজাফফরাবাদ সেক্টর থেকে পাকিস্তানে অনুপ্রবেশ করেছে ভারতীয় বিমান বাহিনীর বিমান। বালাকোট সেক্টরে বোমা ফেলেছে। তবে পাক অধিকৃত কাশ্মীরে ভারতের এই হামলায় কোনো হতাহতের ঘটনা ঘটেনি বলে দাবি করেছেন তিনি।
পাকিস্তানের পররাষ্ট্র মন্ত্রী বলেছেন, দেশের মানুষের দুঃশ্চিন্তার কিছু নেই। আমরা সন্ত্রাসবাদের বিরুদ্ধে সফল লড়াই করেছি। আমরা শান্তিকামী জাতি এবং সন্ত্রাসবাদের বিরুদ্ধে সচেতন রয়েছি। ২০১৬ সালের ২৯ সেপ্টেম্বর সীমান্ত পেরিয়ে সার্জিক্যাল স্ট্রাইক চালিয়েছিল ভারতীয় সেনাবাহিনী। ওই সার্জিক্যাল স্ট্রাইকের পর এবার নতুন করে পাক অধিকৃত কাশ্মীরে বিমান হামলা চালানো হয়েছে।

আরও পড়ুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আরও দেখুন...

Close
Back to top button
Close