সুইডিশ নারী ফুটবলারের ইসলাম গ্রহণ

ইসলাম গ্রহণ করেছেন উত্তর ইউরোপের দেশ সুইডেনের অনূর্ধ-১৯ জাতীয় ফুটবল দলের গোলরক্ষক রনজা অ্যান্ডারসন। তবে ইসলাম গ্রহণের পরই বিভিন্ন জায়গা থেকে তাকে হুমকি দেয়া হচ্ছে বলে জানিয়েছেন এই নওমুসলিম তরুণী। ৭ মাস আগে ইসলাম গ্রহণ করেছেন রনজা। তবে সোমবার রাতে এক টিভি অনুষ্ঠানে তিনি জানিয়েছেন, এর পর থেকেই প্রতিনিয়ত হুমকি ও ঘৃণা-বিদ্বেষের মুখোমুখী হতে হচ্ছে তাকে।

ওই অনুষ্ঠানের মাধ্যমে টিভি কর্তৃপক্ষ এমন একজনকে খুঁজে বের করেন যিনি রনজাকে বিদ্বেষমূলক চিঠি পাঠিছেন। তাকেও হাজির করা হয় অনুষ্ঠানে। সেখানে তিনি এ ঘটনার জন্য রনজার কাছে ক্ষমা চান। ইসলাম গ্রহণ সম্পর্কে এই নারী ফুটবলার বলেন, ১৫ বছর বয়সের সময় এক তুর্কি যুবকের সাথে বন্ধুত্ব হয় আমার। তার ও তার পরিবারের মাধ্যমে আমি ইসলাম সম্পর্কে জানতে পারি। তাদের সাথে আমি তুরস্কেও বেড়াতে যাই। সেখানে মসজিদ দেখে আমি খুবই মুগ্ধ হয়ে যাই।

রনজা জানান, তুর্কি পরিবারটির সংস্পর্শে এসেই তার মধ্যে ইসলামি জীবনাচারণের প্রভাব পড়ে এবং এটি এতই ভালো লাগে যে, ইসলাম ধর্ম গ্রহণের সিদ্ধান্ত নেন। রনজা আরো বলেন, আমি এখন খুবই শান্তিপূর্ণ জীবনযাপন করছি। নিয়মিত কোরআন পড়ি, নামাজ পড়ি, রোজাও রাখি। মুসলিম হতে পেরে আমি গর্বিত। গত বছরের মে মাসে রনজা ইসলাম গ্রহণের পর তাকে নিয়ে ব্যাপক আলোচনায় হয় সুইডেনসহ পুরো ইউরোপ জুড়ে। অনেকে তাকে স্বাগত জানালেও উগ্রপন্থী অনেকের কাছ থেকে বিরোধীতা এমনকি হুমকির সম্মুখীন হতে হয় তাকে।

আরও পড়ুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আরও দেখুন...

Close
Back to top button
Close