ক্রিসমাস ও নববর্ষ উপলক্ষে প্রবীণদের জন্য কাউন্সিলের বিভিন্ন অনুষ্ঠান ও উদ্যোগ

টাওয়ার হ্যামলেটস’ বারার প্রবীণ জনগোষ্টি, যারা উ্সবের সময়টা একা একা নি:সঙ্গ অবস্থায় থাকেন, তাদের জন্য এবারের ক্রিসমাসকে আরো উৎসবমুখর করতে আয়োজন করা হয়েছে বিশেষ অনুষ্ঠানমালার।
টাওয়ার হ্যামলেটস’ কাউন্সিল এবং বিভিন্ন স্বেচ্ছাসেবী, স্বাস্থ্য বিষয়ক ও কমিউনিটি সংগঠনের যৌথ উদ্যোগে ক্রিসমাস ও নববর্ষ উদযাপন উপলক্ষে প্রবীণদের জন্য আয়োজন করা হয়েছে বিভিন্ন ধরনের অনুষ্ঠানের।

নির্বাহী মেয়র জন বিগস বলেন, একাকীত্ব বা নি:সঙ্গতা থেকে আমাদের প্রবীণদের রক্ষা করাটা আমাদের কাছে অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ একটি অগ্রাধিকার। বারার প্রবীণ বাসিন্দারা যাতে সামাজিকভাবে বিচ্চিছন্ন হয়ে না পড়েন, সেজন্য আমাদের লিঙ্কএইজ প্লাস সেন্টারগুলো বিভিন্ন ধরনের পদক্ষেপ নিয়ে থাকে। চলাচলে অক্ষমতা, নিকটজনের মৃত্যুতে শোকগ্রস্ত কিংবা পরিবারের কেউ কাছে না থাকা ইত্যাদি কারণে বয়স্ক জনগোষ্টি যাতে শারিরিক ও মানসিকভাবে বিপর্যস্ত হয়ে না পড়েন, সেজন্য এসব সেন্টার সারা বছরই বিভিন্ন ধরনের এক্টিভিটিজের আয়োজন করে।

ক্রিসমাস ও নববর্ষ উদযাপন অনুষ্ঠানের পাশাপাশি নেইবারস ইন’ পপলার ক্রিসমাস ডে, বক্সিং ডে এবং নিউ ইয়ার্স ডে’তে একা একা বসবাস করা প্রবীণদের ঘরে সম্পূর্ণ বিনা মূল্যে গরম গরম খাবার পৌঁছে দেবে।
ক্রিসমাসের দিন সকালে যখন অন্যরা ব্যস্ত থাকবেন তাদের উপহারের প্যাকেট খোলায়, তখন দুপুরের খাবার রান্না করতে স্বেচ্ছাসেবীরা আসবেন নেইবারস ইন পপলার সেন্টারে এবং তা পৌঁছে দেবেন প্রবীণদের ঘরে।
নেইবারস’ ইন পপলার এর ম্যানেজার, সিস্টার ক্রিস্টিন ফরেস্ট বলেন, ক্রিসমাসের দিন কোন বয়স্ক লোক তার ঘরে একা একা কাটাতে পারেন এমনটা কারো তথ্য থাকলে আমাদের জানাতে আমরা স্থানীয় বাসিন্দাদের অনুরোধ জানাচ্ছি। নিজের প্রতিবেশি কিংবা একই এলাকায় বসবাস করছেন এমন বয়স্ক, নিচ্ঞসঙ্গ, অসহায় মানুষদের দিকে একটু খেয়াল রাখুন। গত বছর আমরা ক্রিসমাস, বক্সিং ডে ও নিউইয়ার্স ডে তে ৪ শতাধিক মিল বা খাবারের প্যাকেট সরবরাহ করেছি।
তিনি বলেন, আমাদের কিছু কিছু স্বেচ্ছাসেবী আছেন, যারা বছরের পর বছর ধরে আমাদের সাহায্য করে আসছেন। অনেকেই চলে আসেন পুরো পরিবার সহ আমাদের সাহায্য করতে।

লিঙ্কএইজ প্লাস এর উৎসব কর্মসূচির অংশ হিসেবে এবারের ক্রিসমাস টি ডান্সে দেড় শতাধিক প্রবীণ যোগ দিয়েছিলেন। মাইল এন্ড পার্কের আর্টস’ প্যাভিলিয়নে আয়োজিত এই অনুষ্ঠানে লাইভ মিউজিকের সাথে ছিলো খাবার দাবার ও পানীয়ের ব্যবস্থা।
ওয়ান টাওয়ার হ্যামলেটস’ ইক্যূয়েলিটিজ প্রোগ্রামের অংশ হিসেব টাওয়ার হ্যামলেটস কাউন্সিলের উদ্যোগে এই অনুষ্ঠান আয়োজনের মূল লক্ষ্য ছিলো বারার প্রবীণ জনগোষ্টিকে নি:সঙ্গতা থেকে রক্ষা করা।
প্রবীণ জনগোষ্টি কল্যানে নিবেদিত এবং কেবিনেট মেম্বার ফর এডাল্টস’, হেলথ এন্ড ওয়েলবিয়িং, কাউন্সিলর ডেনিস জোনস বলেন, আমরা এটা নিশ্চিত করতে চাই যে, টাওয়ার হ্যামলেটস হচ্চেছ তেমনি এক বারায় যেখানে বাসিন্দারা প্রবীণ হওয়ার সাথে সাথে সামাজিকভাবে সম্পৃক্ত, স্বাধীন ও মর্যাদার সাথে বসবাস করেন। ক্রিসমাস ও ইংরেজী নববর্ষের এই উৎসবমুখর সময়ে কেউ যেন বিচ্ছিন্ন হয়ে নি:সঙ্গ জীবন যাপন না করেন, সেদিকে খেয়াল রাখতে এবং নি:সঙ্গ হতে পারেন এমন প্রবীণদের স্থানীয়ভাবে আয়োজিত যে কোন উৎসব অনুষ্ঠানে নিয়ে আসার জন্য আমি বাসিন্দাদের প্রতি অনুরোধ জানাচ্ছি।
যদি কোন প্রবীণ বাসিন্দা, যিনি সামাজিকভাবে বিচ্ছিন্ন হওয়ার ঝুঁকিতে আছেন বলে আপনার মনে হয়, তাহলে ০২০ ৭৯৮৭ ০২৫৭ নাম্বারে ফোন করে নেইবারস’ ইন’ পপলার এর সাথে যোগাযোগ করুন।

আরও পড়ুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আরও দেখুন...

Close
Close