প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীতে আয়োজন নানা অনুষ্ঠানের

৯৫ বছরে পদার্পণ করলো ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়

Dhaka uniআজ ১ জুলাই ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় দিবস। ১৯২১ সালের এই দিনে পূর্ববঙ্গের মানুষের উচ্চশিক্ষায় দিক্ষিত করার লক্ষ্যে আনুষ্ঠানিকভাবে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের যাত্রা শুরু হয়। বাংলাদেশের সকল সোনালী অর্জন আর ইতিহাসের অবিচ্ছেদ্য অংশ। বাঙালির মুক্তির সংগ্রামের প্রতিটি অধ্যায়ের সূচনা হয়েছে এ বিশ্ববিদ্যালয়কে কেন্দ্র করে। বায়ান্নর ভাষা আন্দোলন, ’৬৬-এর ছয় দফা, ’৬৯-এর গণঅভ্যুত্থান ও ’৭১-এর স্বাধীনতা যুদ্ধ, ৯০-এর গণঅভ্যুত্থানে এ বিশ্ববিদ্যালয় নেতৃত্ব দিয়েছে সবার সামনে থেকে। নানা আন্দোলন-সংগ্রাম, চড়াই-উতরাইয়ে গৌরবোজ্জ্বল ভূমিকা রেখেই এ বিশ্ববিদ্যালয়টি ৯৫ বছরে পদার্পণ করবে। এবারে দিবসটির প্রতিপাদ্য বিষয় হচ্ছে “উচ্চশিক্ষা ও টেকসই উন্নয়ন”।
ক্যাম্পাস সেডো, অপরাজেয় বাংলা আর কলা ভবনের পাশ দিয়ে হাঁটলেই অনুভূত হবে বাড়তি আমেজ। কলা ভবনকে সাজানো হয়েছে রঙ বেরঙের লাইটে। আরেকটু হাঁটলেই টিএসসি মাঝে বাংলা একাডেমি তারপর কার্জন হল। নানা রঙের লাইটের ঝলকানি যে কেউই বলবে যে এটি উৎসবের নগরী। আর বলবে না কেন, এটি তো আর কোন সাধারণ দিন নয়। এটি প্রাচ্যের অক্সফোর্ড ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ৯৫তম জন্মদিন।
ভাষা, গণতন্ত্র সর্বোপরি একটি দেশের জন্মে যার অবদান অসামান্য তার জন্মদিনের আয়োজন একটু আড়ম্বরপূর্ণ হওয়াটাই স্বাভাবিক। এই দিনটিকে ঘিরে শিক্ষার্থীদের মাঝে অন্যরকম এক অনুভূতি। পূর্ব আকাশে সূর্যোদয়ের সাথে সাথে আজ নতুন এক ক্যাম্পাসকে আবিষ্কার করবে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় পরিবারের সদস্যরা। মন মাতানো এমন অপরূপ সাজে অবিভূত ক্যাম্পাসে আসা দর্শনার্থীরাও। আজ ১লা জুলাই প্রাচ্যের অক্সফোর্ডখ্যাত দেশ সেরা ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের জন্মদিন।
এ উপলক্ষে বিশ্ববিদ্যালয়ের পক্ষ থেকে ক্যাম্পাসে বিভিন্ন কর্মসূচি গ্রহণ করা হয়েছে। প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে কর্মসূচির উদ্বোধন করবেন প্রধানমন্ত্রীর আন্তর্জাতিক বিষয়ক উপদেষ্টা অধ্যাপক ড. গওহর রিজভী। দিবসটি উপলক্ষে সকাল ১০টায় প্রশাসনিক ভবন সংলগ্ন মলে জমায়েত হয়ে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ও হলসমূহের পতাকা উত্তোলন শেষে সকাল ১০টা ১৫ মিনিটে শোভাযাত্রা সহকারে টিএসসিতে গমন করা হবে। বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র-ছাত্রী, শিক্ষক ও কর্মকর্তা-কর্মচারীবৃন্দ শোভাযাত্রায় অংশগ্রহণ করবেন।
সকাল ১১টায় ছাত্র-শিক্ষক কেন্দ্র মিলনায়তনে অনুষ্ঠিত হবে আলোচনা সভা। বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিসি অধ্যাপক ড. আ আ ম স আরেফিন সিদ্দিকের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত আলোচনা সভায় “উচ্চশিক্ষা ও টেকসই উন্নয়ন” শীর্ষক প্রবন্ধ উপস্থাপন করবেন বিশ্ববিদ্যালয় দিবস বক্তা শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের সচিব মো. নজরুল ইসলাম খান। শুভেচ্ছা বক্তব্য রাখবেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রাক্তন ভিসি, প্রো-ভিসি, এমিরিটাস অধ্যাপকবৃন্দ এবং শিক্ষক, কর্মকর্তা, কর্মচারী সমিতির প্রতিনিধিবৃন্দ।
ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সকল অনুষদ, বিভাগ, ইনস্টিটিউট ও হল দিনব্যাপী নিজস্ব কর্মসূচি গ্রহণ করেছে। এর মধ্যে থেকে সকাল ১০টা থেকে বিকাল ৪টা পর্যন্ত ‘দুর্লভ পান্ডুলিপি প্রদর্শনী’ চলবে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় গ্রন্থাগারে, সকাল ১০টা থেকে বিকাল সাড়ে ৩টা পর্যন্ত বায়োমেডিকেল ফিজিক্স এন্ড টেকনোলজি বিভাগের উদ্ভাবিত চিকিৎসা প্রযুক্তির যন্ত্রপাতি/গবেষণার প্রদর্শনী চলবে কার্জন হল ভবনের দক্ষিণ-পূর্ব বারান্দায়, সকাল ১১টা থেকে চারুকলা অনুষদে চলবে শিশু চিত্রাঙ্কণ প্রতিযোগিতা এবং বিকাল ৩টা থেকে ৪টা পর্যন্ত চারুকলা অনুষদ গ্যালারিতে চলবে শিক্ষার্থীদের সৃজনশীল শিল্পকর্মের প্রদর্শনী। এছাড়া, থিয়েটার এন্ড পারফরম্যান্স স্টাডিজ বিভাগের আয়োজনে বিকাল ৪টায় নাট-মন্ডল মিলনায়তনে বিশেষ বক্তৃতা ও বিকাল সাড়ে ৪টায় বাংলা নাটক “স্বদেশী নকশা” প্রদর্শন করা হবে।
১৯২১ সালের ১ জুলাই তিনটি অনুষদ ও ১২টি বিভাগের ৮৭৭ জন শিক্ষার্থী নিয়ে যাত্রা করে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়। তৎকালীন সময়ে শিক্ষক ছিলেন মাত্র ৬০ জন। সূচনাকালে আবাসিক হল তিনটি। সুদীর্ঘ ৯৪ বছরে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় অর্জন করেছে গৌরবময় ইতিহাস ও ঐতিহ্য। ১৯২১ সালে প্রতিষ্ঠিত হবার পর দেশের স্বাধীনতা ও সার্বভৌমত্বে যেমন এর অবদান রয়েছে তেমনি বাঙালী জাতিকে বিশ্বের বুকে একটি নতুন জাতিসত্ত্বা হিসেবে পরিচয় করিয়ে দিতে এই বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের অবদানও কম নয়। যুগে যুগে এই বিশ্ববিদ্যালয়ের বিভিন্ন অবকাঠামোগত পরিবর্তন এসেছে।
এক নজরে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়: চ্যান্সেলর: মো: আব্দুল হামিদ (মহামান্য রাষ্ট্রপতি), ভিসি: অধ্যাপক ড. আ আ ম স আরেফিন সিদ্দিক, প্রো-ভিসি (শিক্ষা): অধ্যাপক ড. নাসরীন আহমাদ, প্রো-ভিসি (প্রশাসন): অধ্যাপক সহিদ আকতার হোসাইন, কোষাধ্যক্ষ: অধ্যাপক ড. মো: কামাল উদ্দীন, রেজিস্ট্রার (ভারপ্রাপ্ত): সৈয়দ রেজাউর রহমান।
অনুষদ রয়েছে ১৩টি, বিভাগ রয়েছে ৮০, ইনস্টিটিউট: ১১টি, গবেষণা ব্যুরো ও কেন্দ্র: ৪৮টি, আবাসিক হল: ২০টি, হোস্টেল: ০৩টি, নির্মাণাধীন হোস্টেল: ০১টি, শিক্ষক: ১৯২৬ জন, ছাত্র-ছাত্রী: ৩৭,০৬৪ জন, কর্মকর্তা: ১০৬৫ জন, ৩য় শ্রেণীর কর্মচারী: ১০৫৮ জন, ৪র্থ শ্রেণীর কর্মচারী: ২২৩০ জন, পিএইচ ডি প্রাপ্ত: ১৩০০ জন, এমফিল প্রাপ্ত: ১২৫০ জন, ট্রাস্ট ফান্ড: ২৯১টি, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় অধিভুক্ত কলেজ ও ইনস্টিটিউট: ১০০টি, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় অধিভুক্ত কলেজ ও ইনস্টিটিউটের শিক্ষক: ৭৩০৮ জন, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় অধিভুক্ত কলেজ ও ইনস্টিটিউটের শিক্ষার্থী: ৩৬,৪১০ জন, মোট জমির পরিমাণ: ৩২০.৮২ একর।

আরও পড়ুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আরও দেখুন...

Close
Back to top button
Close