গুলশান কার্যালয়ে শোকের পরিবেশ

Kaledaখালেদা জিয়ার ছোট ছেলে আরাফাত রহমান কোকোর মৃত্যু সংবাদে গুলশানে বিএনপি চেয়ারপারসনের কার্যালয়ে শোকের পরিবেশ সৃষ্টি হয়েছে। ছেলেকে হারিয়ে শোকে বিহ্বল হয়ে পড়েছেন খালেদা জিয়া।
দলের স্থায়ী কমিটির সদস্য অবসরপ্রাপ্ত লে. জেনারেল মাহবুবুর রহমান বিকেল ৪টার দিকে জানান, ছেলের মৃত্যু সংবাদের পর খালেদা জিয়া কার্যালয়ের দ্বিতীয় তলায় একাকী অবস্থান করছেন। তার কক্ষে কাউকে প্রবেশ করতে দিচ্ছেন না।
খালেদা জিয়ার মিডিয়া উইং সদস্য সায়রুল কবির খান বলেন, প্রথমে ভাইয়ের স্ত্রী’র (কোকোর মামী) কাছে দুঃসংবাদটি শোনেন খালেদা জিয়া। এরপর ম্যাডামের (খালেদা) কী অবস্থা তাতো বুঝতেই পারছেন।
খালেদা জিয়াকে সান্ত্বনা দিতে এরই মধ্যে গুলশান কার্যালয়ে প্রবেশ করেছেন বিএনপির বেশ কয়েকজন শীর্ষ নেতা, খালেদা জিয়ার আত্মীয়-স্বজন, খালেদার ভাই সাঈদ এস্কেন্দারের স্ত্রী নাছরিন এস্কেন্দার, শামীম এস্কেন্দারের স্ত্রী কানিজ ফাতেমা, খালেদা জিয়ার মেজো বোন সেলিমা ইসলাম, সালাউদ্দীন কাদের চৌধুরীর স্ত্রী ফারহাত কাদের চৌধুরী, সাবেক মন্ত্রী শাজাহান সিরাজের স্ত্রী রাবেয়া সিরাজসহ প্রায় ২০/৩০ জন নারী স্বজন।
এছাড়া বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য লেফটেন্যান্ট জেনারেল (অব.) মাহবুবু রহমান, নজরুল ইসলাম খান, ভাইস চেয়ারম্যান চৌধুরী কামাল ইবনে ইউসুফ, এয়ার ভাইস মার্শাল (অব.) আলতাফ হোসেন চৌধুরী, বিএনপির চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা সাবিহ উদ্দীন আহমেদ, রুহুল আলম চৌধুরী, সাবেক সংসদ সদস্য আশরাফউদ্দীন নিজান, নাজিম উদ্দীন আহমেদ, ঢাকা মহানগর মহিলা দলের সভানেত্রী সুলতানা আহমেদ শোকাহত খালেদা জিয়ার রাজনৈতিক কার্যালয়ে এসেছেন।
এছাড়া ঢাকা বিশ্বাবদ্যালয়ে সাবেক ভিসি ড. অধ্যাপক এমাজ উদ্দীন আহমেদ ও সাংবাদিক মাহফুজ উল্লাহ এসেছেন খালেদা জিয়াকে সমবেদনা জানাতে।
বিকেল সোয়া ৩টার দিকে আরাফাত রহমান কোকোর মৃত্যুর খবর ছড়িয়ে পড়লে খালেদা জিয়ার গুলশান কার্যালয়ে আসতে শুরু করেন তারা।
আগে থেকেই খালেদা জিয়ার সাথে কার্যালয়ে অবস্থান করছেন বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান সেলিমা রহমান, মহিলা দলের সাধারণ সম্পাদক শিরিন সুলতানা, খালেদা জিয়ার একান্ত ব্যক্তিগত সহকারী শামসুর রহমান শিমুল বিশ্বাস।
এদিকে মরহুমের আত্মার মাগফিরাত কামনায় কয়েকজন হাফেজ আনা হয়েছে পবিত্র কোরআন তেলওয়াতের জন্য।
খালেদা জিয়ার স্বাস্থ্য পরীক্ষার জন্য একজন চিকিৎসকও এসেছেন গুলশানে তার রাজনৈতিক কার্যালয়ে।
অন্যদিকে কোকোর মৃত্যু সংবাদটি ছড়িয়ে গেলে মিডিয়াকর্মীদের ভিড় বাড়ে গুলশান কার্যালয়ের সামনে। গত ৩ জানুয়ারি থেকে এখানেই রয়েছেন খালেদা জিয়া।

আরও পড়ুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আরও দেখুন...

Close
Back to top button
Close