জেট এয়ারের কার্যক্রম স্থগিত

আর্থিক সংকটে ধুঁকতে থাকা ভারতের জেট এয়ারওয়েজের আন্তর্জাতিক ও অভ্যন্তরীণ সব ফ্লাইট সাময়িকভাবে বাতিল করা হয়েছে। বিমান সংস্থাটি জানায়, বুধবারই তারা শেষ ফ্লাইট পরিচালনা করবে। জ্বালানি ও অন্যান্য জরুরি পরিষেবার বিল পরিশোধ করতে না পারায় এ সিদ্ধান্ত নিতে হয়েছে। তবে আবার বিমান উড়ানোর আশা প্রকাশ করেছে জেট এয়ার।

সংস্থার দৈনন্দিন খরচ চালাতে ঋণদাতাদের কাছে ঋণ চেয়েছিল জেট ওয়ারওয়েজ। মঙ্গলবার সেই আবেদন খারিজ হয়ে যায়। জেট ওয়ারওয়েজের সিইও বিনয় দুবে ৪০০ কোটি রুপি ঋণ চেয়েছিল। তবে ব্যাংকগুলো তা দিতে অস্বীকার করে। ফলে কার্যক্রম স্থগিত করা ছাড়া আপাতত আর কোনও রাস্তা খোলা ছিল না সংস্থাটির।

ভারতের এখন যেসব বেসরকারি বিমান সংস্থা রয়েছে, জেট এয়ার তাদের মধ্যে সবচেয়ে পুরনো। ১৯৯৩ সালে যাত্রা শুরু করে জেট এয়ার। তবে এয়ার সাহারা, কিংফিশার এয়ারলাইন্স, ইন্ডিগো, স্পাইস জেটের মতো কয়েকটি সস্তার বিমান সংস্থা এসে পড়ায় ২০০০ সাল থেকে তীব্র প্রতিযোগিতার মধ্যে পড়ে জেট এয়ার।

১২৩টি বিমান নিয়ে জেট এয়ার ছিল ভারতের বৃহত্তম বেসরকারি বিমানসংস্থা। তবে বন্ধ হওয়ার আগে এদের মাত্র ৫টি বিমান চলছিল। ২৩ হাজার কর্মীর এই বিমানসংস্থাটি অভ্যন্তরীণ ৬০০ এবং ৩৮০টি আন্তর্জাতিক রুটে বিমান পরিচালনা করত।

আরও পড়ুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আরও দেখুন...

Close
Close