বিটি’র বিরুদ্ধে ৬শ’ মিলিয়ন পাউন্ড ক্ষতিপূরণ মামলা দায়ের

ব্রিটেনের টেলিফোন কোম্পানী বিটি’র বিরুদ্ধে ৬০০ মিলিয়ন পাউন্ডের মামলা দায়ের করা হয়েছে। দীর্ঘদিন যাবৎ বয়স্ক গ্রাহকদের ল্যান্ডলাইনের ওপর আরোপিত অতিরিক্ত চার্জের জন্য ক্ষতিপূরণ প্রদানে ব্যর্থ হওয়ায় আইনী প্রতিষ্ঠান ‘মিশকন ডি রেয়া’ এ মামলাটি দায়ের করেছে। এ সংক্রান্ত দায়িত্বশীল সংস্থা ‘অফকম’ বলেছে, যে সব লোকের শুধুমাত্র ল্যান্ড লাইন টেলিফোন ছিলো, তারা অর্থের তুলনায় উপযুক্ত সেবা পাচ্ছিলো না, কারণ এগুলো যথেষ্ট ভালোভাবে কাজ করছিলো না। এর ফলে এক পর্যায়ে বিটি তার ল্যান্ডলাইনের মূল্য মাসে ৭ পাউন্ড হ্রাস করে। কিন্তু ইতোপূর্বে অতিরিক্ত চার্জের জন্য কোন ক্ষতিপূরণ পাননি গ্রাহকেরা। ক্যাম্পেইনাররা এমন যদি করেছেন।

গ্রাহক গ্রুপ ‘কলেক্টিভ অ্যাকশন অন ল্যান্ডলাইনস’ (সিএএলএল) এর প্রতিষ্ঠাতা জাস্টিন লি প্যাটোরেল বলেন, অফকম এটা স্পষ্ট করেছে যে, বিটি ল্যান্ডলাইনের গ্রাহকদের নিকট থেকে দীর্ঘদিন ধরে অতিরিক্ত অর্থ আদায় করছে। কিন্তু তারা এই অর্থ ফেরত দেয়ার কোন আদেশ প্রদান করেনি। তিনি বলেন, আমরা মনে করি, বিটি’র সবচেয়ে অনুগত লাখ লাখ ল্যান্ডলাইন গ্রাহকদের প্রত্যেকে ৫শ’ পাউন্ড পর্যন্ত ক্ষতিপূরণ পাওয়ার অধিকারী এবং তাদের দায়েরকৃত এই দাবি ঐ প্রক্রিয়াকে সক্রিয় করেছে। সরকার এ ব্যাপারে বিটি’কে কিছু বলতে নারাজ, কারণ বিটি ফাইবার রোল আউটে সহায়তা করতে ৫ হাজার ৩শ’ কর্মসংস্থান সৃষ্টি করেছে। অপরদিকে বিটি এই বলে জোরালোভাবে এ দাবি অস্বীকার করেছে যে, এটা প্রতিদ্বন্দ্বিতা বিরোধী আচরণে জড়িত। তারা আদালতে সর্বশক্তি দিয়ে নিজেদের পক্ষাবলম্বন করবে। বিটি’র জনৈক মুখপাত্র বলেন, আমরা বয়স্ক ও অধিকতর অরক্ষিত গ্রাহকদের প্রতি আমাদের দায়িত্ব পালন করবো এবং অন্য কিছুর পরামর্শ দেয়, এমন কিছুর বিরুদ্ধে আত্মরক্ষা করবো।
তিনি আরো বলেন, বহু বছর যাবৎ আমরা ডিসকাউন্টসহ ল্যান্ডলাইন ও ব্রডব্যান্ড প্যাকেজসমূহ প্রদান করেছি, যেখানে প্রতিদ্বন্দ্বিতাপূর্ণ লভ্য পন্থাসহ একটি প্রতিদ্বন্দ্বিতাপূর্ণ মার্কেট রয়েছে। আমরা বয়স্ক ও অরক্ষিত গ্রুপসমূহের সাথে কাজ করার পাশাপাশি গ্রাহকদের ন্যায্য এজেন্ডা নিয়ে কাজ করতে পেরে গর্বিত।
ক্ষতিপূরণ দাবীকারী প্রতিষ্ঠানটি মামলায় জয়ী হলে ২৩ লাখ বিটি গ্রাহকের প্রত্যেককে ৫০০ পাউন্ড পরিশোধ করতে হতে পারে। গত ২০০৯ সাল থেকে ল্যান্ডলাইন সরবরাহের পাইকারী খরচ কমপক্ষে ২৫ শতাংশ হারে হ্রাস পাচ্ছে। কিন্তু ২০১৭ সালের অক্টোবরে অফকম দেখতে পায় যে, যুক্তরাজ্যের সকল প্রধান ল্যান্ডলাইন প্রদানকারীরা লাইন রেন্ট ২৮ থেকে ৪০ শতাংশ বাড়িয়ে দিয়েছে। অফকম মূল্যবৃদ্ধির জন্য মার্কেট লীডার বিটি’র কঠোর সমালোচনা করে বলে, গ্রাহকরা অর্থের তুলনায় খারাপ সেবা পাচ্ছে। অনেক গ্রাহক কয়েক যুগ ধরে ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছেন, যাদের অনেকেই বয়স্ক, স্বল্প আয়ের ও অরক্ষিত লোকজন।
নিরপেক্ষ টেলিকমস বিশ্লেষক আয়ান গ্রান্ট বলেন, বিটি দীর্ঘদিন যাবৎ গ্রাহকদের নিকট থেকে অতিরিক্ত অর্থ আদায় করছে, যেসব গ্রাহকের অধিকাংশের বয়স ৬৫ বছরেরও বেশী, তাদের তিন চতুর্থাংশ অন্য কোন ফোন ব্যবহার করেননি এবং তাদের কাছে এই ল্যান্ড ফোনই যোগাযোগের একমাত্র মাধ্যম।

আরও পড়ুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আরও দেখুন...

Close
Back to top button
Close