জিনিসপত্র বিক্রি করছেন মার্কিনিরা

রাজায় রাজায় যুদ্ধ হয়, উলুখাগড়ার প্রাণ যায়

সরকারি কর্মীদের প্রতি সংহতি প্রকাশ করে বেতন নেননি শতাধিক কংগ্রেসম্যান

রাজায় রাজায় যুদ্ধ হয়, উলুখাগড়ার প্রাণ যায় বাংলা এই প্রবাদটি হাড়ে হাড়ে টের পাচ্ছেন মার্কিন সরকারের কিয়দংশের অচলাবস্থার কবলে পড়া কর্মীরা। মেক্সিকো সীমান্তে দেয়াল নির্মাণ নিয়ে প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প ও ডেমোক্র্যাট নিয়ন্ত্রিত কংগ্রেসের দ্বন্দ্বে বেতনহীন কয়েক লাখ কর্মীকে নিত্যপ্রয়োজনী পণ্য কিনতে শিশুর ব্যবহৃত জ্যাকেট থেকে শুরু করে দেয়াল ঘড়িটিও বিক্রি করতে হচ্ছে। অপরদিকে, যুক্তরাষ্ট্রে চলমান শাটডাউনে সরকারি কর্মীদের প্রতি সংহতি প্রকাশ করে বেতন নেননি ১০২ জন কংগ্রেস সদস্য।

মার্কিন সরকারের আংশিক শাটডাউন যুক্তরাষ্ট্রের ইতিহাসে সবচেয়ে দীর্ঘতে পরিণত হয়েছে। শাটডাউনের ফলে কয়েক লাখ সরকারি কর্মী বেতন পাচ্ছেন না এবং বেশ কিছু সরকারি কার্যালয় বন্ধ রয়েছে। সামাজিক মাধ্যম ও সংবাদমাধ্যমকে দেওয়া বিবৃতিতে এখন পর্যন্ত ১০২ জন কংগ্রেস সদস্য বেতন না নেওয়ার কথা জানিয়েছে বলে দাবি করেছে মাকিন সংবাদমাধ্যম সিএনএন। এর মধ্যে রিপাবলিকান ও ডেমোক্রেট উভয় দলেরই ২০ জন সিনেটর ও ৮২ জন প্রতিনিধি রয়েছেন। এদের মধ্যে ২৪জন প্রতিনিধি ও দুইজন সিনেটর নব্য নির্বাচিত ও চলতি বছরেই শপথ নিয়েছেন। বেশিরভাগই প্রতিনিধি পরিষদের প্রধান প্রশসনিক কর্মকর্তা ফিল কিকো ও সিনেট ফিন্যানসিয়াল কর্মকর্তাকের তাদের বেতন স্থগিত রাখার কথা বলেছেন। আর কয়েকজন জানিয়েছেন তারা এটি দাতব্য কাজে ব্যয় করবেন।
আন্দ্রেয়া ক্যাভালারোর স্বামী কোস্টগার্ডে চাকরি করেন। সরকারে অচলাবস্থা চলার পরও তাকে প্রতিদিন কাজে যেতে হচ্ছে। কিন্তু প্রায় এক মাস হতে চললেও বেতন না পাওয়ায় কনিষ্ঠ সন্তানের প্রথম জন্মদিনের সময় উপহার দেওয়া বোম্বার জ্যাকেটটি ফেসবুকে পাঁচ ডলারে বিক্রির জন্য পোস্ট দিতে হয়েছে তাকে। শুধু জ্যাকেটই নয়, বাড়িতে থাকা শিশুদের কাপড়চোপড় ও খেলনাগুলোকে পাঁচ থেকে ১০ ডলারের মধ্যে বিক্রি করার পোস্ট দিয়েছেন আন্দ্রেয়া। তিনি বলেছেন, ‘আপনি কখনো ভাবতেও পারেন না, আপনি কাজ করছেন আর আপনাকে বেতনহীন থাকতে হচ্ছে। এ পরিস্থিতিতে না পড়লে এটা কেমন তা আপনি বুঝবেন না।’ উইন্ডি বেটসের স্বামী মহাকাশ গবেষণা সংস্থা নাসার এক ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠানে প্রকৌশলী হিসেবে কর্মরত। নাসার জন্য অর্থ ছাড় না দেওয়ায় বেতনহীন আছেন বেটসের স্বামী। খাদ্যদ্রব্য কিনতে আর ঋণ পরিশোধের জন্য বেটসকে তার বিয়ের সময় কেনা স্মৃতিচিহ্ন টোস্টিং গ্লাস ৬০ ডলারে বিক্রি করতে হয়েছে চোখের পানি বিসর্জন দিয়ে। ক্লিভল্যান্ডের বাসিন্দা বেটসকে এখন ঘরের আসবাবপত্র, কৃত্রিম চারাগাছ, গহণাপত্র সবই একে একে বিক্রি করতে হচ্ছে। মেয়ের বিয়ের জন্য অনলাইনে কয়েকটি বিয়ের পোশাক কিনে রেখেছিলেন লরা ম্নেমনস। তবে এগুলো পছন্দ না হওয়ায় ঘরেই তুলে রেখেছিলেন তিনি।

আরও পড়ুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আরও দেখুন...

Close
Close