ব্রেক্সিটের ফলে ১ ট্রিলিয়ন সম্পদ যুক্তরাজ্য থেকে স্থানান্তরিত হয়েছে

গবেষণা অনুসারে, ব্রেক্সিটের ফলশ্রুতিতে ৪৪০টি আর্থিক প্রতিষ্ঠান হাজারো চাকুরী এবং ১ ট্রিলিয়ন পাউন্ড মূল্যের সম্পদ ইইউয়ের বাইরে স্থানান্তর করেছে। নিউ ফাইন্যান্সিয়াল থিংক ট্যাংক এই বলে ইঙ্গিত দিয়েছে যে, ব্রেক্সিট প্রথম যেমনটি মনে করা হয়েছিলো তার চেয়েও বেশি কঠিন আঘাত হেনেছে লন্ডন নগরীকে এবং এর ক্ষতিকর প্রভাব আরো বৃদ্ধি পাবার সম্ভাবনা রয়েছে।
গবেষণায় আরো দেখা গেছে, যুক্তরাজ্যের ব্যাংকিং ব্যবস্থায় ধারণকৃত মোট সম্পদের প্রায় ১০ শতাংশ অর্থাৎ প্রায় ৯০০ বিলিয়ন পাউন্ড স্থানান্তরিত হয়েছে। বীমা প্রতিষ্ঠানগুলো এবং অ্যাসেট ম্যানেজাররা ১০০ বিলিয়ন পাউন্ড সরিয়ে নিয়েছে।
রিপোর্টে বলা হয়, সবচেয়ে খারাপ সংবাদে হচ্ছে এই যে, এই বিশ্লেষণ প্রকৃত চিত্রের চেয়ে অনেক কম। আমরা শুধু ব্রেক্সিট শুরুর শেষ দিকে রয়েছি। ব্যাংক, বীমা, পেনশন ফান্ড এবং ওয়েলস ম্যানেজাররা আশা করেন যে, যুক্তরাজ্য ইইউ-এ একটি উচু পর্যায়ের প্রবেশ অর্জন করবে। কিন্তু ব্রেক্সিট যুক্তরাজ্যের সবচেয়ে লোভনীয় ইন্ডাস্ট্রিগুলোর একটি ফাইন্যান্সিয়াল সার্ভিসেজ কে কাভার করেনি। ব্রাসেলস এই খাতের জন্য আলাদা চুক্তিসমূহের ব্যাপারে আলোচনার খুব সামান্যই সুযোগ রেখেছে।
রিপোর্টে বলা হয়েছে, এই প্রবেশ বা সুযোগ শীঘ্রই আসবে এমন সম্ভাবনা কম। নিউ ফাইন্যান্সিয়াল-এর বিশ্লেষণ অনুযায়ী, প্রায় ৭৪০০ চাকুরী যুক্তরাজ্য থেকে স্থানান্তরিত হয়েছে কিংবা ইইউ-এর একটি অর্থনৈতিক কেন্দ্রস্থলে সৃষ্টি হয়েছে।
ব্যবসা, সম্পদ ও লিগ্যাল এনটিটিজ-এর স্থানান্তর ইউরোপ ও বিশ্বব্যাপী ব্যাংকিং ও আর্থিক শিল্পে যুক্তরাজ্যের প্রভাব ক্রমশ: বিলীন করে দেবে ব্যবসার একটি অনুপাতকে ইইউয়ে অনুমোদিত ও পরিচালিত হওয়ার মাধ্যমে।
এতে স্থানীয়ভাবে প্রদত্ত সেবাসমূহ পূর্বতনভাবে যুক্তরাজ্য থেকে রপ্তানি হওয়ায় ইইউ-এর সাথে আর্থিক সার্ভিসসমূহে যুক্তরাজ্যের ২৬ বিলিয়ন সারপ্লাস বা উদ্বৃত্ত উল্লেখযোগ্যভাবে হ্রাস পেতে পারে।
ব্রেক্সিটের পর ডাবলিনের ফাইন্যান্সিয়াল সার্ভিসের ক্ষেত্রে বিজয় অর্জিত হয়েছে। ১৩৫টি প্রতিষ্ঠান সেখানে স্থানান্তরিত হয়েছে। প্যারিসে স্থানান্তরিত হয়েছে ১০২টি, লুক্সেমবার্গে ৯৫০টি, ফ্রাংকফুর্টে ৬৩টি এবং আমস্টারডামে ৪৮টি প্রতিষ্ঠান।
রিপোর্টে বলা হয়েছে, ফ্রাংকফুর্ট সম্পদের দিক দিয়ে দীর্ঘমেয়াদে এবং প্যারিস চাকুরীর দিক দিয়ে সবচেয়ে বেশী লাভবান হবে।

আরও পড়ুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আরও দেখুন...

Close
Back to top button
Close